সন্ত্রাসী হামলায় মুক্তিযোদ্ধার বিধবা স্ত্রী সন্তানসহ ৮জন আহত, ভাংচুর

বাগেরহাট জেলার, মোংলায় সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্য দিবালোকে হামলা চালিয়ে মুক্তিযোদ্ধার বিধবা মেয়ের সম্পত্তি দখলের চেষ্টা, ভাংচুরসহ স্ত্রী. সন্তান ও তাদের পরিবারের বেশ কয়েকজন সদস্যকে মারপিট করে আহত করেছে। এতে অন্তত ৬ জন কমবেশী আহত হয়ে স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছে। এদের মধ্যে মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী আনোয়ারা বেগম (৭০) এর অবস্থা গুরুতর। শহরের প্রাণ কেন্দ্র আঁখি সিনেমা হলের সামনে শনিবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে এলাকাবাসী ভীত সন্ত্রস্ত হয়ে পড়েছে।
প্রত্যক্ষদশর্ী ও আহতদের সূত্র জানায়, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে সাবেক পৌর কমিশনার সরোয়ার হোসেন ও পৌর যুবদল নেতা শহিদুল গাজীর নেতৃত্বে শনিবার দুপুর ১ টার দিকে ৮/১০ জনের একদল সন্ত্রাসী ধারালো অস্ত্র ও লাঠি সোটা নিয়ে মোংলা পৌর মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার মৃত মালেক খানের বিধবা মেয়ে ফাতেমা বেগম (৪০) এর বসত বাড়িতে অতর্কিত হামলা চালায়। এ সময় সন্ত্রাসীরা কোন কিছু বুঝে ওঠার আগেই বাড়ির সামনের ওই বিধবার মালিকানাধীন দোকান জবর দখল করে নেয়। সন্ত্রাসীরা বাড়ির মধ্যে প্রবেশ করেও বেশ ভাংচুর চালায়। এক পর্যায়ে সন্ত্রাসীদের তান্ডবে ওই বিধবা মেয়েসহ তার বাড়িতে থাকা বৃদ্ধ মা আনোয়ারা বেগম, অপর আত্মীয় লিলি আক্তার (৩৫), সাগরিকা (৪০)সহ পরিবারের অন্তত ৭/৮ জন সদস্য আহত হন। এদের মধ্যে মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী আনোয়ারা বেগম (৭০) এর অবস্থা গুরুতর। তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। পরে পুলিশ  খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।
মুক্তিযোদ্ধার বিধবা কন্যা ফাতেমা বেগম সাংবাদিকদের অভিযোগ করে বলেন, স্বামির রেখে যাওয়া সম্পত্তির দখলের উপর একটি মহলের দীর্ঘদিন ধরে লোলুপ দৃষ্টি পড়ে ছিল। সম্পত্তি দখল করার উদ্দেশ্যেই পরিকল্পিতভাবে এ হামলা ও তান্ডব চালানো হয়েছে। সন্ত্রাসী মহলটি এখন তাদের হুমকি দিচ্ছে এ নিয়ে যেন বাড়িবাড়ি না করা হয়। এ কারণে তারা জান মালের নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন।
এ ব্যাপারে মোংলা থানার ওসি ইকবাল বাহার চৌধূরী জানান, খবর পাওয়া মাত্রই পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিন্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ দিলে আইনানুগ কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Please follow and like us: