র‍্যাব ও পুলিশর পৃথক অভিযান মধুখালীত বিকাশ প্রতারক চক্রর ৭ সদস্য আটক

সুজল খাঁন, মধুখালী (ফরিদপুর) প্রতিনিধি ১০ নভম্বর  মঙ্গলবার:  ফরিদপুরর মধুখালীত মঙ্গলবার ভার এবং সামবার গভীর রাত মধুখালীত পুলিশ ও র‍্যাবর পথক অভিযান বিকাশ প্রতারণা চক্রর ৭সদস্য ক আটক করা হয়ছ।

ফরিদপুর র‍্যাব-৮ এর সিপিসি-২ ফরিদপুর ক্যাম্প গাপন সংবাদর ভিত্তিত উপজলার ডুমাইন গ্রাম  বিশষ আভিযানিক দল সামবার ৯ নভম্বর গভীর রাত এ অভিযান পরিচালনা কর বিকাশ প্রতারক চক্রর ৩ জন সক্রিয় সদস্যক আটক কর। তারা হলন উপজলার ডুমাইন ইউনিয়নর ডুমাইন গ্রামর মোঃ আকবর মাল্লার ছল মোঃ নূর আলম মাল্লা (১৯), মোঃ সাজ্জাদ আলী কনক এর ছল  মোঃ শাহারুপ শখ ওরফ অমি (১৮) এবং মোঃ জিনাহ শখ এর ছল মোঃ শাকিল শখ (১৯)।

অন্যদিক মঙ্গলবার ভার মধুখালী থানা পুলিশ অভিযান পরিচালনা কর ডুমাইন গ্রামর হাফিজার শেখের ছেলে তুহিন শেখ (৩৫), শহিদুল শেখের ছেলে সুজন সখ (২৫), হাতেম আলী শেখের ছেলে সজিব শেখ (২৫) এবং দেলোয়ার মিয়ার ছেলে মনির মিয়া (২০) কে আটক করে।

র‍্যাক-৮  ও পুলিশ সুত্র জানান, বিকাশ প্রতারক অভিযাগে ৭ সদস্যক আটকরা হয় । এ সময় প্রতারক চক্রর সদস্যদর থেকে বিকাশ প্রতারনার কাজ ব্যবহৃত ১৬টি মাবাইল ফোন ও ২৭ টি সীমকার্ড জব্দ করা হয়। আটককৃত ব্যক্তিগণ বিকাশ প্রতারনার মাধ্যম জনসাধারনের নিকট হতে বিপুল পরিমান অর্থ হাতিয় নিয়েছে বলে স্বীকার করেন। বিকাশ প্রতারক চক্রের সদস্যরা বিভিন দুর্নীতি পরায়ণে মোবাইল সীম বিক্রতার সাথে পরস্পর যাগসাজস করে ভূয়া নাম সীম কার্ড রজিস্ট্রশন ও উক্ত সীমকার্ড ব্যবহার করে অসাধু ডিএসআর(বিকাশ এ্যাকাউট খোলার জন্য বিকাশ কর্তৃপক্ষ কর্তৃক নিয়াগকৃত এজেন্ট) গণের মাধ্যমে ভূয়া বিকাশ এ্যাকাউট খোলা। এছাড়া নিজেকে বিকাশের হেড অফিসের কর্মকর্তা পরিচয় দিয় ফোন করে কৌশলে তাদর বিকাশ পিন কোড নিয়ে নেয় এবং স্মার্ট ফোন বিকাশ এ্যাপস্ ব্যবহার করে উক্ত সাধারণ লোকজনের বিকাশ এ্যাকাউট হতে প্রতারনার মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নেয়।

আটককৃত ৭ ব্যক্তির বিরুদ্ধে আজ মঙ্গলবার মধুখালী থানায় সংশ্লিষ্ট ধারায় মামলা রুজুর প্রক্রিয়া চলমান আছ।

Please follow and like us: