ঝিনাইদহে রেকর্ড পরিমাণ মানুষের বয়স্ক প্রতিবন্ধি ও বিধবা ভাতা

ঝিনাইদহ জেলায় রেকর্ড পরিমাণ মানুষ বয়স্ক, প্রতিবন্ধি ও বিধবা ভাতা পাচ্ছেন। এই তিন ক্যাটাগরিতে ভাতা হিসেবে ১ লাখ ১০ হাজার ৯৯০ জনকে দেওয়া হচ্ছে ৭০ কোটি ৬৬ লাখ ৩৮ হাজার টাকা। দিনকে দিন এই তালিকা দীর্ঘ হচ্ছে। অসচ্ছল পরিবারগুলো সরকারী এই ভাতা পেয়ে কিছুটা হলেও নতুন করে বেঁচে থাকার স্বপ্ন দেখছে। তবে ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বররা সমাজসেবার এই টাকায় ভাগ বসানোর কারণে হতদরিদ্ররা আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। মেম্বররা সবচে বেশি এই কাজে পটু। তারা গ্রামের মানুষের কাছ থেকে জবরদস্তি করে ভাতার টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। সমাজসেবা অধিদপ্তর মেম্বর চেয়ারম্যানদের দুর্নীতি রোধে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের কথা ভাবছে বলে জানান উপ-পরিচালক আব্দুল লতিফ শেখ। ঝিনাইদহ জেলা সমাজসেবা দপ্তর থেকে পাওয়া তথ্যমতে ঝিনাইদহ জেলায় বর্তমান বয়স্ক ভাতা পাচ্ছেন ৫৭ হাজার ৫৬৩ জন। এর মধ্যে ঝিনাইদহ সদর উপজেলায় ১১ হাজার ৬২৭ জন, কালীগঞ্জে ৯ হাজার ১৪৫, কোটচাঁদপুরে ৪ হাজার ৭১৫, মহেশপুরে ১০ হাজার ৬১৭, হরিণাকুন্ডুতে ৬ হাজার ৫৭৩, শৈলকুপায় ১২ হাজার ৩১৩ ও পৌরসভা এলাকায় (ইউসিডি) ২ হাজার ৫৭৩ জন। এদেরকে বয়স্ক ভাতা হিসেবে সরকার ২০১৯ সালের জুন থেকে চলতি বছরের (২০২০) জুন পর্যন্ত ৩৪ কোটি ৫৩ লাখ ৭৮ হাজার টাকা প্রদান করছে। একই অর্থ বছরে জেলার ৬ উপজেলায় বিধবা ও স্বামী পরিত্যক্তা ২৯ হাজার ৩২৫ জন নারীর মধ্যে বিতরণ করা হয়েছে ১৪ কোটি ৭৪ লাখ ১৪ হাজার টাকা। এর মধ্যে পৌর এলাকায় ৪২০ জন, ঝিনাইদহ সদর উপজেলায় ৬ হাজার ৭২৬ জন, কালীগঞ্জে ৪ হাজার ৭৭০, কোটচাঁদপুরে ২ হাজার ৪৫০, মহেশপুরে ৫ হাজার ২০৮, হরিণাকুন্ডুতে ৩ হাজার ৫৯২ ও শৈলকুপা উপজেলায় ৬ হাজার ১৫৯ জন বিধবা ভাতা পাচ্ছেন। অসচ্ছল প্রতিবন্ধি ভাতা হিসেবে উল্লেখিত অর্থ বছরে ২১ কোটি ৩৮ লাখ ৪৬ হাজার টাকা ২৪ হাজার ১০২ জন প্রতিবন্ধির মধ্যে বিতরণ করা হয়েছে। এর মধ্যে ঝিনাইদহ সদর উপজেলায় ৫ হাজার ১২০ জন, কালীগঞ্জে ৩ হাজার ৪৫১, কোটচাঁদপুরে ১ হাজার ৬৫৭, মহেশপুরে ৪ হাজার ৬১৬, হরিণাকুন্ডুতে ২ হাজার ৭৮৭, শৈলকুপায় ৫ হাজার ২৮৭ ও ঝিনাইদহ পৌর এলাকায় ১ হাজার ১৮৪ জনকে প্রতিবন্ধি ভাতা প্রদান করা হচ্ছে। ঝিনাইদহ সমাজসেবা অধিদপ্তরর উপ-পরিচালক আব্দুল লতিফ শেখ জানান, সমাজসেবার এই ভাতা পেয়ে অসচ্ছল পরিবারগুলো উপকৃত হচ্ছেন। তিনি বলেন সচ্ছতার ভিত্তিতে আমরা জেলাব্যাপী ভাতাগ্রহনকারীদের সনাক্ত করছি। এই কাজে জনপ্রতিনিধিরা আমাদের সাহায্য করছেন।

Please follow and like us: