সাতক্ষীরার শ্যামনগরের কৈখালি ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম সন্ত্রাসীদের গুলিতে গুরুতর আহত, হাসপাতালে ভর্তি

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি:

সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার কৈখালী ইউপি চেয়ারম্যান শেখ আব্দুর রহিম সন্ত্রাসী হামলায় গুরত্বর আহত হয়েছেন। কৈখালী ইউপি কার্যালয় চত্বরে রবিবাবর রাতে সন্ত্রাসীরা তাঁকে লক্ষ্য করে প্রথমে গুলি ছোড়ে। পরে ধারালো অস্ত্র দিযে মাথায় ও পিঠে আঘাত করে। এতে তিনি গুরুতর আহত হন। তাকে প্রথমে শ্যামনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। এরপর সেখানে অবস্থার অবনতি হলে নেয়া হয় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। এদিকে, রাতেই পিবিআই ও র‌্যাব কর্মকর্তারা সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল পরিদর্শন করেন।  ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিরোধের জের ধরে তাকে হত্যার চেষ্টা চালানো হয়েছে বলে আহত চেয়ারম্যান ও তার পরিবারের লোকজন দাবি করেছেন। এদিকে, এ ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম উপজেলার কৈখালী ইউনিয়নের জয়াখালী গ্রামের শেখ আবু দাউদ মাস্টারের ছেলে। প্রত্যক্ষদর্শী তার চাচাতো ভাই মামুনসহ স্থানীয়রা জানান, তারা পরিষদ চত্তরে স্থানীয় জনগণকে নিয়ে কথা বলার সময় ৭/৮ টি মোটর সাইকেল যোগে ১০/১২ জন সন্ত্রাসী বোরখা পরে ঘটনাস্থলে প্রবেশ করে। কিছু বুঝে উঠার আগেই সন্ত্রাসীরা চেয়ারম্যানকে লক্ষ্য করে গুলি করে। এ সময় গুলি তার পায়ে লাগে। সন্ত্রাসীরা গুলি করেই ক্ষ্যান্ত হয়নি। তাকে ধারালো চাপাতি দিয়ে মাথায় ও পিঠে আঘাত করে। এতে তিনি গুরুতর আহত হন। স্থানীয় জনগণের ডাকচিৎকারে সন্ত্রাসীরা মোটর সাইকেল যোগে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। এ সময় তারা তাকে দ্রুত উদ্ধার করে শ্যামনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে সেখানে অবস্থার অবনতি হওয়ায় কর্তব্যরত মেডিকেল অফিসার উন্নত চিকিৎসার জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে নেয়া হয় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। তারা আরো জানান, ঘটনাস্থলে গুলির খোসা পড়ে রয়েছে। শ্যামনগর থানার ওসি নাজমুল হুদা জানান, এ ঘটনায় এখনও পর্যন্ত থানায় কেউ কোন লিখিত অভিযোগ দেননি। তবে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

Please follow and like us: