৩৩ হাজার হাই-ভোল্টেজ’র বিদ্যুৎ লাইন সরিয়ে নেয়ার দাবীতে মানববন্ধন

বাগেরহাট জেলার, মোংলায় ঘনবসতীপুর্ন এলাকার উপর দিয়ে তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে ৩৩ হাজার ক্ষমতা সম্পন্ন হাই ভোল্টেজ বিদ্যুৎ সংযোগ লাইন সরিয়ে নেয়ার দাবীতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী। ২২ নভেম্বর রবিবার সকাল সাড়ে ১১টায় বুড়িরডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের সামনে প্রধান সড়কে এলাকার নারী-পুরুষ ও স্কুল কলেজ পড়ুয়া কোমলমতি শিশুসহ প্রায় ৫ হাজার মানুষ এ মানববন্ধনে অংশ নেয়। বসতবাড়ীর উপর দিয়ে ঝুকিপুর্ন বিদ্যুৎ লাইন সরিয়ে না নিলে আগামীতে আরো বড় কর্মসুচির হুশিয়ার দেন এ মানববন্ধন থেকে।

সকাল সাড়ে ১১টায় উপজেলার বুরিড়ডাঙ্গা ইউনিয়নের কয়েকটি ওয়ার্ডে বসবাসকারী মানুষ সম্মিলিতভাবে রাস্তায় নেমে এসে মানববন্ধনে অংশ নেয়। এ সময় তারা দাবী করেন, সরকারের বিদ্যুৎ আইনে বলা আছে, হাই ভোল্টেজ’র সঞ্চালন লাইনের নিচে কোন বসতবাড়ী বা স্থাপনা থাকতে পারবেনা, এছাড়া ডানে-বামে কমপক্ষে ১০ ফুট ফাকা রেখে লাইন সংযোগ নিতে হবে এমন নিয়ম থাকলেও তা মানছেনা পল্লী বিদ্যুৎ বিভাগ। মানুষের বসবাসকারী বাড়ীর উপর দিয়ে এ হাই-ভোল্টেজ’র বিদ্যুৎ লাইন নেয়ায় আতংঙ্ক গ্রস্থ হয়ে পরছে বুড়িরডাঙ্গার এলাকাবাসী। তাই এলাকাবাসীর দাবী, ফাঁকা জায়গা রেখে ঘনবসতীপুর্ন বসতবাড়ীর উপর দিয়ে বিপদ জনক ভাবে ৩৩ হাজার ভোল্টেজের সঞ্চালন লাইনের তার টানা হচ্ছে, যা এখানকার মানুষের জন্য বিপদ জনক ও বড় ধরনের জীবন নাশের শংঙ্কায় রয়েছে স্থানীয়রা।

বুড়িরডাঙ্গা ইউনিয়নে ৪টি ও পৌরসভার ১টি ওয়ার্ড’র মধ্যে দিয়ে এ লাইনের সংযোগ দেয়া হলে প্রায় ১০ হাজার মানুষের জীবনের ঝুকি রয়েছে বলে মানববন্ধনে দাবী করেন বক্তারা। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, আমরা বিদ্যুৎ সংযোগের মাধ্যমে দেশের উন্নয়ন চাই, কিন্তু যে বিদ্যুৎ তাদের জীবনের ঝুকি আনবে বা পরবর্তী সময় আগামী প্রজন্ম ধ্বংশের দিকে ধাবিত হবে এমন বিদ্যুৎ আমরা চাইনা। হয় লাইন সরাতে হবে না হয় ফাইভার ক্যাবল (নিরাপদ ক্যাবল) দিয়ে এলাকার উপর দিয়ে বিদ্যুৎ লাইন নিয়ে হবে।

বিদ্যুৎ বিভাগ তাদের সাথে প্রতারনা করেছে। যখন বিদ্যুতের পিলার স্থাপন করার সময় তাদের বলা হয়েছিল, পুরনো লাইনটি সংস্কার করার জন্য নতুন পিলার বসানো হয়েছে। কিন্তু পরে যানতে পারে এটি পুরোন লাইন নয় তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে নতুন করে পাওয়ার হাউস জাতীয় গ্রিডে সংযোগ দেয়ার জন্য হাই ভোল্টেজে’র লাইন টানা হয়েছে। যা এখানকার বসবাসরত মানুষের জন্য বড় ধরনের ঝুকি রয়েছে। তাই মানববন্ধনের মাধ্যমে কর্তৃপক্ষকে দ্রুত বিপদজনক এ বিদ্যুৎ লাইন সড়িয়ে নেয়ারও দাবী জানায় তারা। তবে যদি কর্তৃপক্ষ এর পরেও বিদ্যুৎ লাইন অপসরন বা ব্যাবস্তা না নেয় তবে আগামীতে আরো কঠিন আনন্দোলন কর্মসুচির হুশিয়ার দেন উপস্থিত বক্তারা। মাবনবন্ধন শেষে নারী-পুরুষ সম্মিলিত ভাবে বিদ্যূৎ লাইনের চলমান কাজ বন্ধ করে দেয়ার জন্য হুশিয়ারী প্রদান করা হয়।

এ সংযোগটি ফাকা জায়গা থেকে যাওয়ার কথা থাকলেও তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে আসা ৩৩ হাজার হাই ভোল্টের এ সংযোগটি বসবাসরত বাড়ীর উপর দিয়ে মোংলার পাওয়ার হাউজ জাতীয় গ্রিডে সংযুক্ত হবে এমটাই দাবী তাদের।

কলেজ প্রভাষক কানুপ্রিয় সরদার, মোংলা উপজেলার শাখার পুজা উদযাপন কমিটির সাধারন সম্পাদক উদয় শংকর বিশ্বাস, শাপলা যুব সংঘের সভাপতি বিবেকানন্দ্র হালদার, মানবাধীকার কর্মী ও সমাজ সেবক উত্তম সরকার, সাবেক ইউপি সদস্য কবিতা রায়, চন্দনা বিশ্বাস, আষিশ রায়, প্রসেন হালদার, রিপন, পিংক, অষেশ, কৌশিক, বিভো ও অমিতসহ এলাকার প্রায় পাচঁ সহস্রাধিক নারী-পুরুষ ও কোমলমতি স্কুল কলেজ পড়ুয়া ছাত্র/ছাত্রীরা এ মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন।

Please follow and like us: