বন্ধুর  বিয়ের কথা বলে ডেকে এনে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টা ॥ ওসির বিচক্ষণতায় রক্ষা

রাজবাড়ী জেলার বালিয়াকান্দিতে   বিয়ের কথা বলে দুই বন্ধুকে ঢাকা থেকে ডেকে এনে মোবাইল কৌশলে নিয়ে ব্যাগে ইয়াবা রেখে ফাঁসানোর চেষ্টা ওসির বিচক্ষণতায় রক্ষা পেল দুই বন্ধু।
১৪ ডিসেম্বর সোমবার সকালে   ভুক্তভোগী, পরিবারের সদস্য ও থানা সুত্রে জানাগেছে, বালিয়াকান্দি উপজেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তরে কর্মরত প্রশান্ত রায়ের ছেলে সৌমিত্র রায় (১৭)। দীর্ঘদিন মাদকাসক্তের কারণে তাকে ফেরা, রিহাব, মাইন্ড এইড হাসপাতালে রাখা হয়। সেখান থেকে পরিচয় ঘটে ঢাকার ধানমন্ডীর খান মুক্তাদির সিজার ছেলে অর্প খানের সাথে। অর্প খানের মাধ্যমে আরেক বন্ধু উত্তরা ৩ নম্বর সেক্টরের ২নং সড়কের আমিনুল ইসলামের ছেলে রিজভী আহমেদ রাফিনের সাথে।
 ইতিপুর্বে তারা দু,জন বেড়াতে আসে সৌমিত্র রায়ের বালিয়াকান্দি তালপট্রি মাদ্রাসার সামনের বাড়ীতে। কয়েকদিন সৌমিত্র রায় দু,বন্ধুকে নিজের বিয়ের কথা বলে আমন্ত্রণ জানায়। রাফিন ও অর্প রবিবার রাতে ঢাকা থেকে বন্ধুর আমন্ত্রণে ছুটে আসে। ফরিদপুর জেলার মধুখালী উপজেলার কামারখালী এসে বাস থেকে নামে। সেখানে আগে থেকেই মোটর সাইকেল নিয়ে অপেক্ষা করছিল সৌমিত্র রায়। সোমবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে ৩ বন্ধু মোটর সাইকেল যোগে বালিয়াকান্দি উপজেলার জঙ্গল ইউনিয়নের ঢোলজানি বাজারে আসে। সেখানে এসে বন্ধুর ব্যাগে ৩টি ইয়াবা রেখে দেয় সৌমিত্র। অর্প খানের মোবাইল ফোন কৌশলে নিয়ে নেয় সৌমিত্র। দুই বন্ধু চায়ের দোকানে বসে ছিল। এরই মধ্যে থানা পুলিশ খবর পায় ইয়াবা নিয়ে বসে আছে দু,জন। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ব্যাগ খুলতেই ৩পিছ ইয়াবা পায়। পরে তাদেরকে থানায় নিয়ে আসে। হাজির করা হয় উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) এস,এম আবু দারদার ভ্রাম্যমান আদালতে।
 অপ্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ার কারণে ৩জনকেই থানায় পাঠান। থানার অফিসার ইনচার্জ তারিকুজ্জামান বিচক্ষণতার সাথে ঘটনাটির বিস্তারিত শোনেন এবং মোবাইল ফোনটি উদ্ধার করেন। পরে অর্প ও রাফিনকে স্থানীয় বালিয়াকান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নায়েব আলী শেখ এর জিম্মায় প্রদান করাসহ সৌমিত্রকে তার বাবার জিম্মায় প্রদান করেন পুনরায় মাদকাসক্তি নিরাময় কেন্দ্রে পাঠানোর শর্তে।
Please follow and like us: