বিজয় দিবসের দুইদিন পর আজকের এই দিনে রাজবাড়ী শত্রু মুক্ত

 

রাজবাড়ীকে  অবাঙালি বিহারিদের কবল থেকে ১৯৭১ সালের আজকের (১৮ ডিসেম্বর) এই দিনের মুক্ত করা হয়। ফলে বিজয় দিবসের দুইদিন পর এই দিনটিকে  রাজবাড়ী মুক্ত দিবস হিসেবে পালন করা হয়।

যখন দেশের বিভিন্ন যাইগা থেকে বিজয়ের খবর আসতেশুরু করেছে তখন রাজবাড়ী অবাঙালি বিহারিরা তাদের অধিপত্যে বিস্তারে মরিয়া হয়ে পরে। তার পেক্ষিতে ৬ ডিসেম্বরের পর থেকে তৎপর হয়ে ওঠে তারা।

তাদের মিশন  সারা দেশ মুক্ত হলেও রাজবাড়ী তাদের দখলে থাকবে- এই ভেবে তারা পুরো রাজবাড়ী দখল করে রাখে।যার ফলে ৯ ডিসেম্বর শহরের লক্ষীকোল এলাকায় বিহারিদের সাথে মুক্তিযোদ্ধাদের যুদ্ধ হয়। বিহারিদের গুলিতে সেদিন বেশ কয়েকজন শহীদ হন।

১৬ ডিসেম্বরের পরে বিহারিদের পরাজিত করার জন্য জেলার সব অঞ্চল থেকে মুক্তিবাহিনীর বিভিন্ন দল রাজবাড়ীতে যুদ্ধের জন্য সংগঠিত হতে থাকে।

তার পেক্ষিতে  শহিদুন্নবী আলম, ইলিয়াস মিয়া, সিরাজ আহম্মেদ, আবুল হাসেম বাকাউল, কামরুল হাসান লালী, রফিকুল ইসলামের কমান্ডে মুক্তিযোদ্ধারা চারদিকে ঘিরে রাখেন। এদের সাথে জেলার পাংশা থেকে জিল্লুল হাকিম, আব্দুল মতিন, নাসিরুল হক সাবু, আব্দুল মালেক, সাচ্চু, আব্দুল রব তাদের দল নিয়ে যোগদান করে বিরাহিদের আক্রমণ করেন। এতে শতাধিক বিহারি নিহত হয়। বিহারিদের সাথে মুক্তিযোদ্ধাদের যুদ্ধের কথা শুনে যশোর, মাগুরা, কুষ্টিয়া, ফরিদপুর থেকে মুক্তিযোদ্ধারা রাজবাড়ীর মুক্তিযোদ্ধাসের সাথে একতত্বা প্রকাশ করে যুদ্ধ শুরু করেন।

১৮ ডিসেম্বর রাজবাড়ীকে শত্রুমুক্ত করেন।

রাজবাড়ী মুক্ত দিবস উপলক্ষে জেলার বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করছে।

Please follow and like us: