বগুড়ায় মঞ্জুরুল আলম মোহনের পক্ষে সংবাদ সম্মেলন মোটর মালিক গ্রæপের নির্বাচন বন্ধ করতেই পরিকল্পিত হামলা চালিয়েছে আমিনুল ও তার লোকজন

oznorCO

বগুড়া জেলা প্রতিনিধি:

বগুড়া জেলা মোটর মালিক গ্রæপের নির্বাচনী তফসীল অনুযায়ী মঙ্গলবার চারমাথাস্থ কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে গণসংযোগে গেলে পূর্ব থেকে অবস্থান নেয়া আমিনুল ও তার লোকজন কর্তব্যরত পুলিশ এবং তাদের ওপর হামলা করে। বুধবার দুপুরে বগুড়া প্রেসক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বগুড়া জেলা মোটর মালিক গ্রæপের সাবেক আহŸায়ক ও বর্তমান সদস্য মঞ্জুরুল আলম মোহনের পক্ষে এসব অভিযোগ করেছেন বগুড়া জেলা মোটর মালিক গ্রæপের সাবেক আহŸায়ক কমিটির সদস্য ও পরিবহন ব্যবসায়ী ফটিক অধিকারী।
লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, পরিবহন ব্যবসায়ী এ্যাড. মাহবুব আলম শাহীন হত্যার হুকুমের প্রধান আসামি আমিনুল ইসলামের নেতৃত্বে প্রায় ৩ শতাধিক লাঠিয়াল বাহিনী মঙ্গলবার পূর্বপরিকল্পিভাবে চারমাথাস্থ কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে নিজেদের রাখা মোটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। এই হত্যা মামলার অন্য আসামিরা জেল-হাজতে থাকলেও অদৃশ্য ক্ষমতাবলে সে জামিনে বেরিয়ে এসে বগুড়ার সুষ্ঠু পরিবহন ব্যবসায় নানা অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে। তার ভয়ে গ্রæপের সাধারণ সদস্যগণ অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনে স্ব-স্ব গাড়ির বøু-বুক নির্বাচন বোর্ডের কাছে দাখিল করতে সাহস পাচ্ছেন না। বøু-বুক জমা দিলে গাড়ির চেইন আউট করাসহ পরিবহন ব্যবসা বন্ধ করে দেয়ার হুমকি দেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন ফটিক।
এসময় জানানো হয়, বগুড়া জেলা মোটর মালিক গ্রæপ বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অধিভুক্ত রেজিস্টার পরিবহন সংগঠন, যার একটি সুনির্দিষ্ট গঠনতন্ত্র রয়েছে। সেই আলোকে বগুড়া জেলা মোটর মালিক গ্রæপ’র প্রশাসক হাইকোর্টের আদেশ ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ মতে নির্বাচন বোর্ড-২০২১ কর্তৃক দ্বি-বার্ষিক সাধারণ নির্বাচনের তফশিল প্রকাশ করে। তফসিল বাস্তবায়নের জন্য সদস্যগণের মধ্যে মতবিনিময় তথা গণসংযোগ করার জন্য মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে গেলে আগে থেকে ওৎ পেতে থাকা আমিনুল ইসলামের নেতৃত্বে তার লোকজন কর্তব্যরত পুলিশের ওপর হামলা চালায়। ফটিক অধিকারী বলেন, মঞ্জুরুল  আলম মোহন আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল এবং আইনের বাইরে কোন কিছু করেননি। নির্বাচনকে সামনে রেখে টার্মিনালে গণসংযোগ করার জন্য উপস্থিত হয়েছিলেন মাত্র।  অথচ একটি মহল মোহন কে ঘিরে নিয়ে যে অবান্তর মন্তব্য করেছেন সংবাদ সম্মেলনে তার তীব্র নিন্দা জানানো হয়।
ফটিক অধিকারী অভিযোগ করেন, বগুড়া জেলা মোটর মালিক গ্রæপের প্রশাসক ও অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের সার্বিক তত্ত¡াবধানে নির্বাচনের সকল কার্যক্রম চলমান থাকাবস্থায় তাদের আদেশ উপেক্ষা করে গ্রæপের ক্ষমতাকে আরও দুই বছর পরিচালনা করার হীন মানসে সম্পন্ন বে-আইনীভাবে সংগঠনের সাধারণ সদস্যদের মৌলিক অধিকার হরণ করার উদ্দেশ্যে এবং নির্বাচন না করার লক্ষে নানা প্রকার অপকর্ম করে উদোর পিন্ডি বুদোর ঘারে চাপানোর চেষ্টা চালানো হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, গ্রæপের নির্বাচন গণতান্ত্রিক পন্থায় নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু হলে সাধারণ সদস্যগণ তাদের বয়কট করবেন। এটা তাদের ভালোভাবে জানা আছে। এমতাবস্থায় বগুড়া পরিবহণ ব্যবস্থায় নেতিবাচক প্রভাব পড়লে বা অচল অবস্থার সৃষ্টি হলে তার সকল দায় দায়িত্ব আমিনুল বাহিনীকে বহন করতে হবে। এসময় ওই হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে হামলাকারী দোষী ব্যক্তিদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে উপযুক্ত শাস্তির জোর দাবি জানানো হয়। মঞ্জুরুল আলম মোহনের পক্ষে কোন কর্মসূচী রয়েছে কি না সাংবাদিকরা জানতে চাইলে ফটিক অধিকারী বলেন, আইনের প্রতি তারা শ্রদ্ধাশীল তাই নিজেদের কোন কর্মসূচী তাদের নেই তবে মঙ্গলবারের হামলার ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ এবং হামলাকারীদের দোষী ব্যক্তিদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে দেশের প্রচলিত আইনে উপযুক্ত শাস্তির জন্য জোর দাবী জানিয়েছে এই পরিবহন নেতা। সংবাদ সম্মেলনে এসময় উপস্থিত ছিলেন বগুড়া জেলা মোটর মালিক গ্রæপের সাবেক আহবায়ক কমিটির সদস্য ও পরিবহন ব্যবসায়ী আলহাজ্ব নূরুল ইসলাম এবং রাশেদুজ্জামান রাসেল প্রমুখ।

Please follow and like us:

আপনার মন্তব্য লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here