দৈনিক আমার প্রাণের বাংলাদেশ পত্রিকার সম্পাদক আবদুল্লাহ আল মামুনের উপর হামলা

জুবায়ের, খুলনাাঃ

দৈনিক আমার প্রাণের বাংলাদেশ পত্রিকার সম্পাদক আবদুল্লাহ আল মামুন গত ১৬ মার্চ একজন সাংবাদিক এর দাওয়াতে ঢাকা থেকে কুমিল্লা ও চাঁদপুর এর উদ্দশ্য যান। তার পর চাঁদপুর এস পি সাহেব ও ডিসি সাহেব এর সাথে দেখা করতে গেলে তাদের বিশেষ মিটিং এর কারণে দেখা না করতে পারায় তারপর যান চাঁদপুর ফরিদগঞ্জ উপজেলা নির্বাহি অফিসার এর কার্যলয়ে। সেখানে কুশল বিনিময় এর পর উপজেলা নির্বাহি অফিসার ম্যাডাম তাদের তার সামনে চেয়ারে বসতে বলেন। তারপর সাংবাদিক মাহাবুব ও রাজু ম্যাডামকে পত্রিকা দেন। তারপর রুমে অন্য যারা ছিল সবাইকে পত্রিকা দেন। উপজেলা নির্বাহি অফিসার এর রুমে ছিল উপজেলা চেয়ারমম্যান জাহিদুল ইসলাম রোমান তাকে ও পত্রিকা দিলে পত্রিকা দেখে ক্ষিপ্ত হন আর বলেন সব হলুদ সাংবাদিক রুম থেকে বের হ না হলে ঘাড় ধরে রুম থেকে বের করে দিব। পরে সাংবাদিক ও উপজেলা চেয়ারমম্যান এর ভিতর বাকবিতন্ডা কাথা কাটাকাটি হয়। তারপর উপজেলা চেয়ারম্যান ইউএনও ম্যাডাম এর রুম থেকে বের হয়ে তার স্থানীয় গুন্ডা বাহিনিকে খবর দিয়ে ইউএনও অফিসের সামনে জমায়েত করেন। তারপর সাংবাদিক ও সম্পাদক বিষয়টি বুঝতে পেরে ইউএনও  ম্যাডাম কাছ থেকে বিদায় নিয়ে তারা দ্রুত গাড়িতে উঠে স্থান ত্যাগ করার চেষ্টা করেন। তারমধ্য হঠাৎ ইউএনও অফিস এর দুই তলা থেকে নিচে নামলে শুরু হয় হামলা অস্ত্র ঠেকিয়ে সম্পাদককে জানে মেরে ফেলার হুমকি দেয়।তারপর সাংবাদিকদের মধ্য ধস্তাধস্তি হয়।তারপর সাংবাদিক রাজু ইউএনও ম্যাডাম কে উপরে উঠে আত্মরক্ষার কথা বললে ইউএনও ওসি সাহেবকে ফোন করলে দ্রুত পুলিশ পাঠায় তারপর পুলিশক ও সাংবাদিকদের সেভ করে থানায় নিয়ে তাদের গাড়িতে করে তাদের জান ফেরত নিয়ে রওনা দিতে বলেন। উপজেলা চেয়ারমম্যান ক্ষিপ্ত হওয়ার কারণ জানতে চাইলে সম্পাদক সাহেব বলেন হয়ত বা কোন এক সময়ে উপজেলা চেয়ারমম্যান এর বিরুদ্ধে নিউজ হয়েছে। তাই তারা আমাদের উপর নিউজ হওয়ার কারণে চড়াও হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন হয়ত ঘটনাস্থলে পুলিশ না আসলে আমাদের মেরে ফেলত। তাই সম্পাদক সাহেবের জোর দাবি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিচার চেয়ে এই ঘটনার সাথে জড়িতদেরকে আইনের আওতায় এনে সাজা দেওয়া হোক। তাহলে দেশের সাংবাদিকদের কাজে হয়ত কেউ বিঘ্ন ঘটানোর সাহস পাবে না। আর দেশের সাংবাদিকরা নিরাপদে সংবাদ সংগ্রহ করতে পারবে। তাদের কাজের স্বাধীনতা ফিরে পাবে।
Please follow and like us:

আপনার মন্তব্য লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here