জাতীয় শোক দিবসে পাংশা উপজেলা আওয়ামীলীগের অফিসে ডুকতে দিলো না এমপি এ্যাড. খোদেজা নাসরিন আক্তার হোসেনকে

জাতীয় শোক দিবসে পাংশা উপজেলা আওয়ামীলীগের অফিসে ডুকতে দিলো না এমপি এ্যাড. খোদেজা নাসরিন আক্তার হোসেনকে
-মিঠুন গোস্বামী রাজবাড়ীঃ

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে (রাজবাড়ী) ৩৪০ সংরক্ষিত মহিলা আসনের এম,পি এ্যাড. খোদেজা নাসরিন আক্তার হোসেন পাংশা উপজেলা আওয়ামীলীগের অফিসে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে উপস্তিত হতে গেলে তাকে বাঁধা প্রদান করেছেন উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও যুগ্ন আহবায়ক জালাল উদ্দিন বিশ্বাস ও পাংশা উপজেলা যুবলীগের কথিত বহিস্কৃত আহবায়ক ফজলুল হক ফরহাদ।

 
গত রবিবার (১৫ আগষ্ট) বিকাল ৫ টা লাগাদ সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি এ্যাড. খোদেজা নাসরিন আক্তার হোসেন উপজেলা আওয়ামীলীগের অফিসে অনুষ্ঠিত দোয়া মাহফিলে উপস্থিত হতে গেলে তাকে বাঁধা প্রদান সহ বাজে ভাষায় গালিগালাজ করা হয়।
এ বিষয়ে সংরক্ষিত মহিলা আসনের এম,পি এ্যাড. খোদেজা নাসরিন আক্তার হোসেন বলেন, আমি জাতীয় শোক দিবসে সকাল থেকে জেলা আওয়ামীলীগ সহ সহযোগী সংগঠনের সাথে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করি। পরে পাংশা উপজেলা পরিষদ চত্তরে উপজেলা নির্বাহী কমকর্তা, সার্কেল এ এস পি, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সহ অন্যান্য নেতাকর্মীদের সাথে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করি।
আমি পাংশা আছি জেনে পাংশা উপজেলা আওয়ামিলীগের সাবেক সভাপতি এ কে এম শফিকুল মোর্শেদ আরুজ ফোনে আমাকে ডাকলে আমি উপজেলা আওয়ামীলীগের অফিসে ডুকতে গেলে তার নেতৃত্বে আমাকে বাঁধা প্রদান করে। তারা আমাকে বলে নির্যাতিত আওয়ামীলীগের ব্যানারে যে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠান হচ্ছে সেখান থেকে এসেছেন আপনাকে ডুকতে দেওয়া হবে না।
পরে আমি জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী ইরাদত আলী কে উক্ত বিষয় টি অবহিত করি,সে আমাকে বলেন আমি সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।
রাজবাড়ী জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী ইরাদত আলী কে উক্ত বিষয় জানার জন্য মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে সে ফোন রিছিভ করেন নাই।

Leave a Reply