“লুটপাটের কেলেংকারি ঢাকতে নতুন পন্থায় পাংশা সরকারি কলেজ” প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

গত আট এপ্রিল ২০২১ইং তারিখে বিডিসি নিউজে প্রকাশিত “লুটপাটের কেলেংকারি ঢাকতে নতুন পন্থায় পাংশা সরকারি কলেজ” খবরের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো: আব্দুল খালেক স্বাক্ষরিত চিঠিতে। তিনি প্রতিবাদ লিপিতে উল্লেখ করেছেন “অত্র প্রতিষ্ঠান, প্রতিষ্ঠান প্রধান ও শিক্ষক কর্মকর্তাদের সম্পর্কে যে তথ্য ও উপাত্ত উপস্থাপন করা হয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট, মনগড়া, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত।”

এছাড়াও পাংশা সরকারি কলেজের সাবেক ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ এ.কে.এম শফিকুল মোরশেদ স্বাক্ষরিত অপর এক চিঠিতে এই প্রকাশিত সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছেন যে “আমি পাংশা সরকারি কলেজে দায়িত্ব পালন কালের দুর্নীতি বিষয়ে আমাকে হেয় করা হয়েছে। দীর্ঘ আট বছর ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালনের পর মো: আতাউল হক খান চৌধুরী ০৭/০৮/২০১৬ইং তারিখ অধ্যক্ষের দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। আমার দায়িত্ব পালনকালে পাংশা সরকারি কলেজে সর্বোচ্চ শিক্ষার্থী ভর্তি, অবকাঠামোগত উন্নয়ন এবং শিক্ষার অনুকুল পরিবেশ বিরাজমান ছিল।
বর্তমানে পাংশার সামাজিক ও রাজনৈতিক পরিমন্ডলে আমাদের পরিবারের স্বতন্ত্র অবস্থান আছে। আমি অবসরকালে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছি। স্বাধীনতা আন্দোলনে আমাদের পরিবারের অগ্রনী ভুমিকা ছিল বিধায় একটি মহল রাজনৈতিক ও সামাজিক ভাবে আমাদেরকে বিব্রত করতে প্রতিহিংসা পরায়ন হয়ে আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করতে কলেজকে জড়িয়ে আমার দুর্নীতির সম্পৃক্ততা খুঁজছে। বিষয়টি সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট, মনগড়া, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্য প্রনোদিত।”

Please follow and like us:

আপনার মন্তব্য লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here