দৌলদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুট পরিদর্শনে (বিআইডব্লিউটিএ) চেয়ারম্যান,লঞ্চ চলাচলের সিদ্ধান্ত নেবেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ

দৌলদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুট পরিদর্শনে (বিআইডব্লিউটিএ) চেয়ারম্যান,লঞ্চ চলাচলের সিদ্ধান্ত নেবেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ

-মিঠুন গোস্বামী রাজবাড়ীঃ
সারাদেশে চলছে কঠোর লকডাউন, অন্যদিকে ঘনিয়ে আসছে পবিত্র ঈদুল আজহা৷ দেশের অন্যতম নৌরুট দৌলদিয়া- -পাটুরিয়াতে লঞ্চ চলাচল করবে কি না এ বিষয়ে কথা বললেন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্পোরেশন (বিআইডব্লিউটিএ) চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক।

সোমবার (১২ জুলাই) দুপুরে রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ফেরিঘাট ও লঞ্চঘাট পরিদর্শন শেষে তিনি বলেন, আসন্ন পবিত্র ঈদুল আজহায় লঞ্চ চলাচল করবে কি না- এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত দিবেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। তাছাড়াও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে স্বাস্থ্যবিধি বিষয়ক একটি কমিটি রয়েছে। তারা লঞ্চ চলাচলের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত দিতে পারেন। যেহেতু এখন দেশে করোনার মহামারি চলছে, সেহেতু ঈদে লঞ্চ চলবে কিনা তা মন্ত্রীপরিষদই সিদ্ধান্ত নিবে।

এর আগে তিনি মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া ও আরিচা ঘাট পরিদর্শন শেষে বিআইডব্লিউটিএ’র নিজস্ব স্পিডবোটে দৌলতদিয়ায় ভাঙন কবলিত এলাকার লঞ্চঘাট ও ফেরিঘাট পরিদর্শন করেন।

তিনি বলেন, দৌলতদিয়া নদী বন্দরকে আধুনিকায়ন করার জন্য বড় একটি প্রকল্পের কাজের পরিকল্পনা রয়েছে। যে কারণে লঞ্চঘাট এবং ফেরিঘাট এলাকায় ভাঙন মেরামত বড় পরিসরে কাজ করা সম্ভব নয়। তবে ভাঙন রোধে অস্থায়ী প্রতিরোধ হিসাবে জিও ব্যাগ ফেলে ভাঙন প্রতিরোধ করার চেষ্টা করা হবে। দ্রুত সময়ের মধ্যে বড় পরিসরে ৭নম্বর ফেরিঘাট চালু করা হবে বলে জানান তিনি।

ঘাট এলাকা পরিদর্শনের সময় বিআইডব্লিউটিএর প্রধান প্রকৌশলী মো. মহিদুল ইসলাম, বিআইডব্লিউটিএর পরিচালক মো. শাহজাহান, নির্বাহী প্রকৌশলী নিজাম উদ্দীন পাঠান, গোয়ালন্দ উপজেলা পরিষদের চেয়াম্যান মো. মোস্তফা মুন্সী, নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আজিজুল হক খান মামুন, পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রধান প্রকৌশলী আব্দুল হেকিম, গোয়ালন্দ পৌরসভার মেয়র নজরুল ইসলাম মন্ডল, দৌলতদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রহমান মন্ডল, গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মোহম্মদ আলী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply