জেলা আ’লীগের সম্মেলনে গুরুত্বপূর্ণ দুই পদের বিপরীতে প্রার্থী হচ্ছেন যারা

জেলা আ’লীগের সম্মেলনে গুরুত্বপূর্ণ দুই পদের বিপরীতে প্রার্থী হচ্ছেন যারা

-মিঠুন গোস্বামী, রাজবাড়ীঃ

রাজবাড়ী জেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন কে কেন্দ্র করে জেলাজুড়ে সাধারন মানুষের মধ্যে  শুরু হয়েছে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা। প্রার্থীর তালিকায় রয়েছে হাফ ডজনের ও বেশি । আগামী (৩০সেপ্টেম্বর) রাজবাড়ী শহীদ রেলওয়ে মাঠে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার (২ সেপ্টেম্বর) আওয়ামীলীগের ঢাকা বিভাগের দায়িত্বরত সাংগঠনিক সম্পাদক মীর্জা আজম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তবে তারিখ নির্ধারণ করেছে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

তবে এর আগে একাধিক বার জেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলনের দিন নির্ধারণ করা হলেও করোনা ভাইরাস সংক্রমণের কারণে তা সম্ভব হয়নি। করোনা সংক্রমণের হার কমে আসায় এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান এই কেন্দ্রীয় নেতা।

রাজবাড়ী জেলা আওয়ামীলীগের কাউন্সিল কে কেন্দ্র করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ উত্তপ্ত। যে যার মতো করে  পছন্দের  প্রার্থীকে এগিয়ে রাখছে।

এরইমধ্যে আগামী (১৪ সেপ্টেম্বর) রয়েছে জেলা আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভা। উক্ত বর্ধিত সভা কে কেন্দ্র করে প্রস্তুতি নিচ্ছে প্রার্থীরা।

সভাপতি পদে প্রার্থী হচ্ছেন বর্তমান জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও রাজবাড়ী-২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা জিল্লুল হাকিম, রাজবাড়ী জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য কাজী কেরামত আলী, জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও সাবেক জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আকবর আলী মর্জি ও কেন্দ্রীয় কৃর্ষক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নূরে আলম সিদ্দিকী হক।

সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হচ্ছেন রাজবাড়ী জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক কাজী ইরাদত আলী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও ১/১১ বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মুক্তির আন্দলোনে সামনে থেকে নেত্রীত্ব দেওয়া রাজবাড়ী কৃতি সন্তান শেখ সোহেল রানা টিপু ও রাজবাড়ী পৌরসভার সাবেক মেয়র মোহাম্মদ আলী চৌধুরী।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে রাজবাড়ী জেলা আওয়ামীলীগের কাউন্সিলে রাজবাড়ী-২ আসনের সংসদ সদস্য মো. জিল্লুল হাকিমকে সভাপতি ও রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য কাজী কেরামত আলীকে সাধারণ সম্পাদক করে কমিটি ঘোষণা করা হয়। পরে বিভিন্ন নাটকীয়তার মধ্য দিয়ে কাজী কেরামত আলী নিজের পদ হতে অব্যাহতি নিলে তার আপন ভাই কাজী ইরাদত আলী ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এর দায়িত্বভার গ্রহণ করে।

Leave a Reply