এবার বয়স্ক ভাতার অনলাইন নিবন্ধন করতে গিয়ে জানলেন তিনি মৃত 

এবার বয়স্ক ভাতার অনলাইন নিবন্ধন করতে গিয়ে জানলেন তিনি মৃত
-মিঠুন গোস্বামী, রাজবাড়ীঃ
রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার নারুয়া ইউনিয়নের মধুপুর গ্রামের মৃত গেন্দু মন্ডলের স্ত্রী মোছাঃ গোলজান বিবি ইউনিয়ন পরিষদে বয়স্ক ভাতার অনলাইন নিবন্ধন করতে গিয়ে জানলেন তিনি অনেক আগেই মারা গেছেন। নির্বাচন কার্যালয় থেকে দেওয়া ভোটার আইডি কার্ড অনুযায়ী তিনি এখন মৃত।
এ বিষয়ে মোছাঃ গোলজান বিবির ছেলে মধু মন্ডল বলেন,আমার মায়ের ভোটার আইডি কার্ড এর জন্ম(৫ এপ্রিল ১৯২৯) তারিখ অনুযায়ী অনেক আগেই বয়স্ক ভাতার কার্ড হওয়ার কথা, তবে কোন জনপ্রতিনিধি করে দেয়নি। বর্তমান সরকারী ভাবে শতভাগ বয়স্ক, বিধবা, স্বামী নিগৃহিতা ও প্রতিবন্ধী ভাতার নিবন্ধন কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এ কারণে চেয়ারম্যানের নিকট মায়ের ভোটার আইডি কার্ড দিয়ে নিবন্ধন করতে গেলে কম্পিউটারে না নেওয়ার ফলে চেয়ারম্যান নির্বাচন অফিসে গিয়ে জানতে পারেন ভোটার তালিকায় মৃত। এখন আর কি করবো।
নারুয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুস সালাম মাষ্টার বলেন,এর আগেও  নির্বাচন অফিস থেকে প্রদান করা ভোটার আইডি কার্ড অনুযায়ী দেখা যায় মায়ের চেয়ে ছেলে ২৫ বছরের বড়, বাবার চেয়ে ছেলে ৪ বছরের ছোটসহ অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে। মোছাঃ গোলাপজান বিবির বয়স্ক ভাতার নিবন্ধন করতে গেলে দেখতে পাই, তার তথ্য নেয় না। এ কারণে নির্বাচন অফিসে গিয়ে জানতে পারি ভোটার তালিকায় মৃত দেখাচ্ছে।
গত বুধবার বালিয়াকান্দিতে কম্পিউটার দোকান থেকে স্বাস্থ্য বিভাগের সুরক্ষা অ্যাপে করোনার টিকার নিবন্ধন করতে গিয়ে জানতে পারলেন বালিয়াকান্দি উপজেলার নবাবপুর ইউনিয়নের বড়হিজলী গ্রামের মৃত আব্দুল জলিল মোল্যার পুত্র মুহাম্মদ আনোয়ার হোসেন মৃত। তিনি বালিয়াকান্দি উপজেলার একটি এমপিওভুক্ত মাদ্রাসায় শিক্ষকতা করেন।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো: নিজাম উদ্দিন বলেন, তাঁকে দ্রত আবেদন করতে বলুন। দ্রত যাতে তার সমস্যাটি সমাধান করা যায় সে বিষয়ে উদ্যোগ নেয়া হবে। এরআগেও ১৩টি পাঠিয়েছি তাদের সংশোধন করে এনেছি। আবারও ৫-৬টি পাঠিয়েছি।

Leave a Reply