শরীয়তপুরের সদর উপজেলায় স্ত্রীকে খুন করে থানায় এসে আত্মসমর্পণ 

শরীয়তপুরের সদর উপজেলায় স্ত্রীকে খুন করে থানায় এসে আত্মসমর্পণ
-ওহিদুল ইসলাম, শরীয়তপুর সদর উপজেলা প্রতিনিধিঃ
পারিবারিক কলহের জেরে স্ত্রীকে খুন করে থানায় এসে স্বামী নিজেই খুনের কথা স্বীকার করে আত্মসমর্পণ করেছেন।
বুধবার(২৮জুলাই) শরীয়তপুর পৌর বাসস্টান্ড সংলগ্ন একটি ভাড়া বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।
জানা যায়, ফরিদপুরের বালিহাটির মৃত চাঁন মিয়া মুন্সীর ছেলে আরিফ মুন্সীর(৪০) সাথে শরীয়তপুরের আবুল কালাম হাওলাদারের মেয়ে রাজিয়া সুলতানা মৌর(২৮) বিয়ে হয়। আরিফ-মৌ দম্পত্তির দুটি সন্তান রয়েছে এরা হলো, মেয়ে আয়েশা আক্তার ঈশা(১৩) ও ছেলে ইয়াকুব মুন্সী সোহান(৮) নামে দুটি সন্তান।
মঙ্গলবার রাতে স্বামী-স্ত্রী ঝগড়া হয়। ঝগড়া শেষে দুজনেই ঘুমিয়ে থাকে। ভোর রাতে স্বামী  আরিফ মুন্সী ঘুমিয়ে থাকা স্ত্রী মৌর মাথায় ইট দিয়ে আঘাত করলে মৌ মারা যায়। মৃত্যুর খবর আরিফ নিজেই থানায় গিয়ে পুলিশকে জানায়। ঘটনাস্থলে পুলিশ এসে জানতে পারে আরিফ নিজেই তার স্ত্রী মৌকে খুন করে। এরই প্রেক্ষিতে পালং মডেল থানা পুলিশ আরিফ কে গ্রেফতার করে। লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
এবিষয়ে পালং মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আখতার হোসেন বলেন, আসামী নিজেই এসে জানিয়েছে যে একটি খুন হয়েছে। পরে আমরা তাকে গ্রেফতার করেছি। মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

Leave a Reply