“বাগেরহাট জেলার মোংলায় কোষ্টগার্ডের অভিযানে জেলি পুশকৃত চিংড়ি মাছ জব্দ”

বাগেরহাট জেলার, মোংলা কোস্টগার্ড পশ্চিম জোনের সদস্যরা, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও মৎস্য মান নিয়ন্ত্রন কর্তৃপক্ষ যৌথভাবে অভিযান চালিয়ে জেলি পুশকৃত চিংড়ী মাছ জব্দ করা হয়েছে। আজ দুপুরে রুপসা থানাধীন বাগমারা সংলগ্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৫৬০ কেজি বাগদা ও গলদা জেলি পুশকৃত চিংড়ি আটক করা হয়। এসময় ৪টি মাছ প্রসেশিং কোম্পানীকে এক লক্ষ টাকা জড়িমানাও করা হয়েছে। পাশাপাশী চিংড়ী মাছে জেলি পুশকরার সাথে জড়িত ৩জন দুর্বৃত্তকে ১৫ দিন করে কারাদন্ড দেয়া হয়।

মোংলা কোষ্টগাড’র গোয়েন্দা কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট এম ফয়সাল হক জানান, গোপন সংবাদ পেয়ে কোষ্টগার্ড পশ্চিম জোনের ষ্টেশন রুপসা এর সাথে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও মৎস্য মান নিয়ন্ত্রন কর্তৃপক্ষ যৌথভাবে বাগমারা এলাকায় অভিযান চালানো হয়। এসময় জেলি পুশকৃত চিংড়ি প্রক্রিয়াজাত করার সময় ৩জনকে হাতেনাতে আটক করা হয়েছে। চিংড়ীতে জেলি পুশকরা কাজে জড়িত থাকায় জুয়েল ফিস, রাজু ফিস, জনতা ফিস ও হুমায়ুন ফিস এ ৪টি প্রতিষ্ঠানকে এক লক্ষ টাকা জড়িমানা ও আটক ৩জনের প্রতেককে ১৫ দিন করে কারাদন্ড প্রদান করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। কারাদনড প্রাপ্তরা হচ্ছে, মৃত আনোয়ার মোল্লা ছেলে মোঃ শাহাজাহান (৩০), মৃত কাওসার শেখ’র ছেলে মোঃ মিজান শেখ (২৮) ও মোঃ নূর হাসান’র ছেলে মোঃ সোহান শেখ (৩০)। এদের সকলের বাড়ী বাগমারা, রুপসা খুলনানর বিভিন্ন এলাকায় বলে জানা গেছে। পরবর্তীতে কোষ্টগার্ড, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও মৎস্য মান নিয়ন্ত্রন কর্তৃপক্ষ এর উপস্থিতিতে জব্দকৃত চিংড়ি মাছ নষ্ট করা হয়েছে।

কোস্ট গার্ড এর এখতিয়ারভূক্ত এলাকাসমূহে আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ, চোরাচালান ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি বন্যপ্রানী সংরক্ষন ও মৎস্য সম্পদ রক্ষায় কোস্ট গার্ড জিরো টলারেন্স নীতি অবলম্বন করে নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করে আসছে এবং ভবিষ্যতেও এরুপ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলে জানায় কোস্টগার্ড পশ্চিম জোনের এ গোয়েন্দা কর্মকর্তা।

Please follow and like us: