“বাগেরহাট জেলার চিতলমারীতে শিক্ষা কর্মকর্তার সাথে শিক্ষকের ঔদ্ধ্যত্বপূর্ণ আচরণ”

করোনার ক্রান্তিকালে শিক্ষার্থীদের নিরাপদে রাখতে সরকার সারাদেশে স্কুল-কলেজ বন্ধ ঘোষণা করেছেন। আগামী ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত এ ছুটি বলবৎ রয়েছে। কিন্তু সরকারের এ নির্দেশকে অমান্য করে বাগেরহাটের চিতলমারী উপজেলার ‘বেবি হোম কিন্ডার গার্টেন’ নামের একটি অনুমোদনহীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কোমলমতি শিক্ষার্থীদের চরম ঝুঁকির দিকে ঠেলে দিচ্ছে। তারা দিনের পর দিন শিশু শিক্ষার্থীদের নিয়ে স্কুলে ক্লাস পরিচালনা করছেন। শনিবার দুপুরে এ সংক্রান্ত তদন্তে গেলে চিতলমারীর এক শিক্ষা কর্মকর্তার সাথে ঔদ্ধ্যত্বপূর্ণ আচরণ করেছেন ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক সোহাগ মোল্লা। অনুমোদনহীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষকের এ ধরণের আচরণে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তারা হতবাক হয়ে পড়েছেন।

জানা গেছে, করোনার প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়ার পর সরকার শিক্ষার্থীদের সুরক্ষায় দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করেন। এরই ধারাবাহিকতায় এ উপজেলার ৪টি কলেজ, ৩২টি মাধ্যমিক, ৭টি মাদ্রাসা, ১১১টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ৪৮টি কিন্ডার গার্টেন প্রশাসন বন্ধ ঘোষণা করেন। সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সরকারি নির্দেশ মান্য করে চললেও চিতলমারী সদর বাজার সংলগ্ন অনুমোদনহীন ‘বেবিহোম কিন্ডার গার্টেনে’র শিক্ষক ও কর্তৃপক্ষ দিনের পর দিন স্কুলে ক্লাস পরিচালনা করে আসছেন। ফলে সামনের শীতকালকে কেন্দ্র করে করোনা নিয়ে সরকার যেখানে উদ্বিগ্ন সেখানে সকল নির্দেশনাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে শিশু শিক্ষার্থীদের চরম ঝুঁকির মধ্যে ঢেলে দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান শিক্ষক সোহাগ মোল্লাসহ পরিচালকবৃন্দ। এ খবর পেয়ে শনিবার দুপুরে চিতলমারী উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ আমিনুল ইসলামের নির্দেশে সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা এস এম আলী আকবর সরেজমিন তদন্তে যান। এ সময় স্কুলের পরিচালক ও প্রধান শিক্ষক সোহাগ মোল্লা ঔদ্ধত্বপূর্ণ আচরণ করেন। সোহাগ মোল্লার এ আচরণে ওই কর্মকর্তা হতবাক হয়ে পড়েন।

এ ব্যাপারে জানতে প্রধান শিক্ষক ও পরিচালক সোহাগ মোল্লার মুঠোফোনে বারবার রিং দিলেও তা বন্ধ পাওয়া গেছে।

তবে ওই প্রতিষ্ঠানের অংশীদার মোঃ বায়জিদ হোসেন পলাশ বলেন, আমাদের প্রতিষ্ঠানে কোন প্রকার ক্লাশ চলে না। যারা এ ধরনের কথা বলেছে তারা ভুল বলেছে।

এ ব্যাপারে চিতলমারী উপজেলা সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা এস এম আলী আকবর সাংবাদিকদের বলেন, অনুমোদনহীন ‘বেবি হোম কিন্ডার গার্টেন’ নামের ওই প্রতিষ্ঠানটি সকল সরকারি নিদের্শনাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে স্কুল পরিচালনা করে আসছে। যার ভিডিও ক্লিপ আমাদের কাছে রয়েছে। প্রধান শিক্ষক সোহাগ মোল্লার আচরণ ঔদ্ধ্যত্বপূর্ণ। আমরা ওই প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে প্রতিবেদন পাঠাবো।

Please follow and like us: