“বাগেরহাট জেলার শরণখোলা উপজেলা পরিষদের-উপ নির্বাচন, রাত পোহালেই ভোট”

বাগেরহাট জেলার, শরণখোলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচন কাল (২০অক্টোবর)। এ উপলক্ষ্যে সোমবার দুপুর ১টা থেকে ব্যালট পেপার, স্বচ্ছ ব্যালট বাক্সসহ ভোটের যাবতীয় উপকরণ বিলি-বন্টন শুরু হয়। ভোটের মালামাল নিয়ে ভ্যান-টমটমে করে স্ব স্ব ভোট কেন্দ্রে ছুঁটছেন নির্বাচন পরিচালনায় নিয়োজিত প্রিজাইডিং অফিসাররা।

পাশাপাশি এবার করোনা মহামারীর কারণে নির্বাচন কর্মী ও ভোটারদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় সকল ভোট কেন্দ্রে হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করা হয়েছে।

শান্তিপূর্ণ ভোট গ্রহনের জন্য ইতিমধ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে উপজেলা প্রশাসন। চার জন ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে মোতায়েন করা হয়েছে বিপুল সংখ্যক বিজিবি, র‌্যাব, পুলিশ ও আনসার-ভিডিপি সদস্য।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা অঞ্জন সরকার জানান, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদের উপ-নির্বাচনের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রিজাইডিং অফিসারদের ভোটের মালামাল বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। সন্ধ্যার মধ্যে তারা স্ব স্ব কেন্দ্রে অবস্থান করবেন। উপজেলার চারটি ইউনিয়নের মোট ৩৩টি ভোট কেন্দ্রে সকাল ৯টা থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত একটানা ভোটগ্রহন অনুষ্ঠিত হবে। ৪৪ হাজার ৬০২জন পূরুষ এবং ৪৪ হাজার ৭৩৫ জন নারীসহ মোট ৮৯ হাজার ৩৩৭ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

নির্বাচন কর্মকর্তা জানান, উপ-নির্বাচনে তিন জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এরা হলেন আওয়ামীলীগ মনোনীত রায়হান উদ্দিন শান্ত (নৌকা), বিএনপি মনোনীত মতিয়ার রহমান খান (ধানের শীষ) এবং জাতীয় পার্টি মনোনিত অ্যাডভোকেট শহিদুল ইসলাম (লাঙ্গল)।

শরণখোলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সরদার মোস্তফা শাহিন জানান, অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য সকল প্রস্তুতি গ্রহন করা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় চারজন ম্যাজিট্রেটের নেতৃতে বিজিবি, র‌্যাব, পুলিশ ও আনসার-ভিডিপি সদস্য নিযুক্ত করা হয়েছে। নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা নিয়ে এখন পর্যন্ত কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। শান্তিপূর্ণভাবেই নির্চাচন সম্পন্ন হবে বলে আশা করেন তিনি।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের পাঁচ ডিসেম্বর শরণখোলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল উদ্দিন আকন মারা যান। এর প্রায় ১০মাস পর শূণ্য এই পদে ২০ অক্টোবর উপ-নির্বাচনের জন্য গত ১৫ সেপ্টেম্বর তপসিল ঘোষনা করে নির্বাচন কমিশন।

Please follow and like us: