শার্শায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বাড়ির আসবাবপত্র ভাংচুর সহ প্রাণনাশের হুমকির অভিযোগ

শার্শায় তু”্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বাড়ির আসবাব পত্র ভাংচুর এর অভিযোগ করেছে উলাশি ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আয়নাল হোসেনের সন্ত্রাসী বাহিনীর বিরুদ্ধে। শুক্রবার বেলা ১ টার দিকে একটি ইজিবাইক ও একটি মোটর সাইকেল এর মধ্যে দুর্ঘটনা ঘটাকে কেন্দ্র করে বাগআঁচড়া ইউনিয়ন এর সামটা গ্রামের ইয়াকুব সরদারের বাড়িতে ভাংচুর করে একদল সন্ত্রাসী বাহিনী। এসময় তান্ডব চলাকালে ঠেকাতে গেলে বাড়ির মেয়েছেলেদের মারধর করে এবং প্রান নাশের হুমকি প্রদান করেন। জামতলা বাজারে দাঁড়িয়ে উলাশি ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আয়নাল হোসেন ইয়াকুব এর পা কেটে নেওয়ার হুমকি দেয় বলে ইয়াকুব সরদার অভিযোগ করেন।

সরেজমিনে উপজেলার সামটা গ্রামে গেলে ইয়াকুব সরদার জানান, একটি ইজিবাইক ও নাভারন এর আব্দুল হাই বাবু নামে একজন মোটরসাইকেল চালক এর  মধ্যে দুর্ঘটনা ঘটে। এসময় মোটরসাইকেল চালক ইজিবাইক চালককে বেধড়ক মারপিট করলে তাকে হার ধরে টেনে অন্য জায়গায় নিয়ে যেতে গেল আমাকেও মারধর করে। এবং গালাগালি দিয়ে বলে আমাকে কেন তুই হাত ধরে টানছিস। এরপর সে ফোন করে শার্শার কন্যাদাহ এলাকা থেকে আয়নাল চেয়ারম্যান এর ছেলে সহ প্রায় ৩০ /৪০ জন লোক ডেকে নিয়ে আসে। তারপর আমার বাড়িতে প্রবেশ করে বাড়ির আসবাবপত্র ভাংচুর করে। এবং আয়নাল হোসেনের উপস্থিতিতে তারা আমার বাড়িতে এ তান্ডব চালায়।

এব্যাপারে বাগআচড়া ইউনিয়ন পরিষদ এর চেয়ারম্যান ইলিয়াছ কবির বকুলের কাছে বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি বলেন এরকম একটি ঘটনা তিনি শুনেছেন। পরে বিস্তারিত জানাবো।উলাশি ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আয়নাল হোসেন বলেন আমি নামাজে ছিলাম। আমি কেন তাদের হুমকি দিব। সেখানে ওই একটু সামান্য ঠেলাঠেলি হয়েছে। আমি সকলকে ঠেকিয়ে বাড়ি নিয়ে এসেছি।

শার্শা থানার ওসি বদরুল আলম বলেন জামতলা বাজারে সড়ক দুর্ঘটনা ঘটেছে এখবর শুনে সেখানে পুলিশ গিয়েছিল। পুলিশ চলে আসার পর একটি বাড়িতে ভাংচুর হয়েছে শুনেছি। তবে এখনো থানায় কোন অভিযোগ দায়ের হয়নি। অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Please follow and like us: