শার্শায় ধৃষ্টতা দেখিয়ে ১৫ আগষ্ট জাতিয় শোক দিবসের বঙ্গবন্ধু ও প্রধান মন্ত্রীর ছবি সংবলিত বিল বোর্ড ছিড়ে ফেলেছে দুবৃত্তরা

শার্শায় ধৃষ্টতা দেখিয়ে ১৫ আগষ্ট জাতিয় শোক দিবসের বঙ্গবন্ধু ও প্রধান মন্ত্রীর ছবি সংবলিত বিল বোর্ড ছিড়ে ফেলেছে দুবৃত্তরা

-বেনাপোল প্রতিনিধিঃ
হীন রাজনীতির স্বার্থ চরিতার্থ করার জন্য জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার তনয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ফেষ্টুন এবং বিল বোর্ড ছিড়ে ফেলেছে দুবৃত্তরা। শার্শার নিজামপুর ইউনিয়নের গোড়পাড়া বাজারে দুবৃত্তরা এ ঘটনা ঘটিয়েছে। ১৫ আগষ্ট জাতিয় শোক দিবস উপলক্ষে শার্শা উপজেলা আওয়ামী যুবলীগ এর যুগ্ম আহবায়ক সেলিম রেজা বিপুল ও সাবেক নিজামপুর ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা আশরাফুল আলম বাটুল পৃথক বিল বোর্ড ফেস্টুন দেয় গোড়পাড়া বাজারে। এই বিলবোর্ডে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা, সজিব ওয়াজেদ জয় এর সাথে যশোর জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ও বেনাপোল পৌর মেয়র আশরাফুল আলম লিটন এর ছবি ছিল। আওয়ামীলীগ এর একটি পক্ষ ইর্ষাম্বিত হয়ে বুধবার রাত ১০ টার সময় বাজারের নাইট গার্ডদের সামনে ধৃষ্টতা দেখিয়ে ছিড়ে ফেলে জাতির জনকের এই বিলবোর্ড। ভয়ে ওই নাইট গার্ডরা মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছে না।

নিজামপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি সুমন আহমেদ বলেন, যারা বঙ্গবন্ধুর ছবির বিলবোর্ড ছিড়ে ফেলেছে তারা পেশী শক্তি ও দুর্বৃত্তায়নের রাজনীতি করে তারা এই ছবি ছিড়ে ফেলেছে। আমি এর সুষ্ঠৃু তদন্ত সাপেক্ষ বিচার দাবি করছি।

বাজারের নাাইট গার্ড আব্দুল গফুর বলেন রাত ১০ টার সময় আমি বাজারে ছিলাম না। পরে এসে মহিবুলের কাছে জানতে পেরেছি যে এই বিল বোর্ড ছিড়ে ফেলেছে। আমি নাম বলতে পারব না। কারা বিলবোর্ড ফেস্টুন ছিড়েছে মহিবুল্লাহর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি বলতে পারব না। নাম বললে আমার চাকরি থাকবে না এমনকি আমি মারধরের ও শিকার হতে পারি।

শার্শা উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক সেলিম রেজা বিপুল বলেন, ১৫ আগষ্ট জাতিয় শোক দিবসের বিল বোর্ড তাও জাতির জনকের ছবি সংবলিত; তা ছিড়ে ফিলে ঘৃনতম কাজ করেছে। এরা আর যাই হোকে অন্তত বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কর্মী হতে পারে না। আমি এর কঠিন নিন্দা জানাই এবং প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

নিজামপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ এর কাছে বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি বলেন বাজারে আমারও পোষ্টার বিলবোর্ড রয়েছে। তবে আমার ইউনিয়ন পরিষদ এর সামনে হাসপাতাল মোড়ে সেলিম রেজা বিপুল এর বিলবোর্ড কে বা কারা ছিড়েছে তা আমি বলতে পারব না। এই বিল বোর্ড ছিড়া অত্যান্ত জঘন্যতম কাজ। আমি বিপুলকে ফোন করে আবারও বিলবোর্ড পোষ্টার টানাতে বলেছি। যারা ছিড়–ক ধরতে পারলে তাদের বিরুদ্ধে আমি ব্যবস্থা গ্রহন করব। এ বিষয়টি আমি গোড়পাড়া আইসি জহির উদ্দিনকেও বলেছি।

গোড়পাড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ জহির উদ্দিন বলেন বিষয়টি শুনেছি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। শার্শা থানার ওসি বদরুল আলম বলেন আমি ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠাবো এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Leave a Reply