ঝিনাইদহ শৈলকুপায় ১১৩টি পূজামন্ডপে রং তুলির আচঁড় শেষ, পিঁড়িতে উঠার অপেক্ষা মায়ের।

ঝিনাইদহের শৈলকুপায় ১১৩টি পূজা মন্দিরে প্রতিমা নির্মাণসহ রং চড়ানোর কাজ ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে। একদিন পরই বৃহস্পতিবার বিকালে পিড়িতে উঠার অপেক্ষায় দিন গুনছে মা দুর্গা ।
সনাতন ধর্মালম্বীদের মহোৎসব শারদীয় দূর্গা পূজা বিগত দিনের ন্যায় এবারও আনন্দঘন পরিবেশে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে ইতোমধ্যেই সকল আগাম প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম, থানা অফিসার ইনচার্জ জাহাঙ্গীর আলম, উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সনদ কুমার সাহা সহ বিভিন্ন মন্দির ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক।
এদিকে উপজেলা প্রশাসন মন্দিরে আহার্যের জন্য প্রতিটি মন্দিরে ৫০০ কেজি চাউল বরাদ্দ দিয়েছে।
পৌরসভাধীন ৬টি পুজা মন্ডপের সভাপতি ও সম্পাদকের সাথে কথা বলে জানা যায়, বরাবরের মতো এবার সরকার প্রতি মন্দিরে নিয়মিত অনসার ডিউটি না রাখলেও গ্রাম পুলিশ সহ প্রতি মন্দিরে কয়েকজন সেচ্ছাসেবক প্রশাসনের নির্দেশ অনুযায়ী সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে আইনশৃঙ্খলা রক্ষার্থে নিয়োজিত থাকবে।
উপজেলা আনসার ভিডিপি কর্মকর্তা আসিফ ইকবল জানান, করোনার জন্য এবার পুজামন্ডপ গুলোতে আনসার সদস্যের সংখ্যা নেহাতই গত বছরের তুলনায় অনেক কম। উপজেলার ১১৩টি পুজা মন্ডপে ১৪০ জন আনসার সদস্য দায়িত্বে আছেন। এছাড়া ১০ সদস্যের ভ্রাম্যমান আনসার সদস্যরা প্রতিটি মন্দিরে পালাক্রমে দায়িত্ব পালন করবে।
Please follow and like us: