শৈলকুপা ভুমি অফিসের দৃশ্যপট পাল্টে দিলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি)

ইনছান আলী, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধিঃ শৈলকুপা ভূমি অফিসে যোগদানের পর থেকে কমতে শুরু করছে সাধারন মানুষের ভোগান্তি নেই কোন দালালের আনাগোনা সাধারন কোন জনগন কাজ নিয়ে গেলেই তাদের ভোগান্তি ছাড়াই ন্যায় সংঙ্গত কাজ সমাপ্ত করে দেন স্বল্প সময়ে, অত্যন্ত সাদা সিদে মনের মানুষ সহকারী কমিশনার ভূমি জনাব পার্থ প্রতীম শীল, বাল্য বিবাহ মাদক জুয়া অবৈধ্য বালু উওোলন কারীদের বিরুদ্ধে রুখে দিতে তিনি মোবাইল কোট পরিচালনা করেন, অনলাইন সেবা চালুর পর থেকে সরকারী সম্পতি রক্ষা নামজারী দ্রুতকরন রাজস্ব আদায় বৃদ্ধি সহ ভুমি সংক্রান্ত জটিলতা সহজ হয়ে গেছে। খাজনা খারিজ ডিসিআর এখন অনলাইনের মাধ্যমে সহজে করা যাচ্ছে জনাব পার্থ প্রতীম শীলের যোগদানের পরেই অফিসের সামনে থেকে ফুটপাত উচ্ছেদ করে লেখা হয়েছে খাজনা খারিজের ফিস সহ বিভিন্ন নিয়মাবলী, তিনি জানান জমি ক্রয়ের পরেই নামজারী করুন ও মালিকানা স্বত্ব নিষ্কন্টক রাখুন অফিসে কাজ করতে আসা মহরী আবু সাইদ বলেন এমন স্যার যদি সবসময় থাকতো আমাদের কতইনা ভাল হতো
নান্দনিক উদ্যোগ দেখেও শেখা যেতে পারে-
 তিনি ধন্যবাদ পেতেই পারেন বলে বিশ্বাস করি। গুছিয়ে হাসিমুখে কথা বলাটা যেমন শিল্পগুন তেমনি আপনার অফিস আঙ্গিনা, বাড়ির উঠোন কিংবা ঘরের বারান্দা পরিচ্ছন্ন পরিপাটি রাখতেও পরিবার থেকে নানা রকম শিক্ষা নিতে হয়। শৈলকূপা থানা ও ডিগ্রি কলেজ প্রাচীর, প্রাণী সম্পদ অফিসের দেয়ালসহ উপজেলা এবং হাসপাতাল আঙ্গিনায় এমন হলে ক্ষতি কি? খুব বেশি খরচ বলে মনে হয়না শুধু মানুষিকতার প্রয়োজন।  দৃষ্টিনন্দন এসব দেয়ালচিকা একসময় জনপ্রিয় হয়ে উঠতে পারে। ধন্যবাদ শৈলকুপা  সহকারী কমিশনার (ভূমি) পার্থ প্রতিম শীল কে।
Please follow and like us: