২০ কোটি টাকার রাস্তার পিচ হাত লাগালেই উঠে আসছে

 ২০ কোটি টাকা ব্যায়ে নির্মিত পিচের রাস্তা ৩ দিনেই উঠে যাচ্ছে। বৃষ্টি-কাঁদা ও দীর্ঘদিন ফেলে রাখা রাস্তা পরিস্কার না করে নিন্মমানের সাহগ্রী ব্যবহার করা হয়েছে বলে অভিযোগ। সরেজমিন দেখা গেছে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার ডাকবাংলা ত্রীমোহনী থেকে কালীগঞ্জ নিমতলা বাসষ্ট্যান্ড ভায়া বাজার গোপালপুর ২৩ কিলোমিটার আঞ্চলিক সড়কের নির্মাণ কাজের অংশ বিশেষ শেষ হওয়ার আগেই রাস্তায় ফাটল সৃষ্টি হয়েছে। ফলে যানবাহনের চাকায় উঠে যাচ্ছে সদ্য দেওয়া উপরের পিচ। ২৩ কিলোমিটার এ সড়ক নির্মাণের কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। সোমবার সকালে দেখা গেছে, ২৩ কিলোমিটার সড়কের মধ্যে এ পর্যন্ত ৪ কিলোমিটার রাস্তায় পিচ দেওয়া হয়েছে। পাঁচদিনের মাথায় কালীগঞ্জ উপজেলার শ্রীরামপুর এলাকায় প্রায় আধাকিলোমিটার রাস্তার পিচ উঠে যাচ্ছে। রাস্তা থেকে সরে যাচ্ছে পাথর ও খোয়া। স্থানীয়রা সড়কের পিচ-খোয়া হাত দিয়েই উঠিয়ে ফেলছে। জানা গেছে, পিএমপি প্রকল্পের অধীন ঝিনাইদহের ডাকবাংলা বাজার-কালীগঞ্জ সড়কের ২৩ কিলোমিটার মজবুতিসহ ওয়ারিংকোর্সের কাজ চলছে। খুলনার ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মোজাহার এন্টারপ্রাইজ প্রাইভেট লিমিটেড কাজটির প্রকৃত ঠিকাদার। তবে বাস্তবে কাজটি করছেন ঝিনাইদহের ঠিকাদার মিজানুর রহমান মাসুম। এ সড়কটির নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে প্রায় ২০ কোটি টাকা। এলাকাবাসী জানায়, পাঁচদিন আগে এই সড়কে পিচ ঢালাই দেওয়া হয়। কিন্তু নিন্মমানের সামগ্রি দিয়ে কাজ করায় পিচ ঢালাইয়ের পাঁচদিনের মাথায় উঠে যাচ্ছে পিচ এবং সড়কটির মাঝে মাঝে বড় ধরনের ফাটল দেখা দিয়েছে। এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোহম্মদ জিয়াউল হায়দারের মোবাইলে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি।
Please follow and like us: