শালিখায় ফটকি নদীতে ২২টি আড়বাধ ধ্বংস করলো ভ্রাম্যমান আদালত

মাগুরার শালিখায় ফটকি নদীর আড়পাড়া অংশে দেশী প্রজাতির মাছের প্রজনন নিশ্চিত ও অবাধ চলাচল নিরাপদ করে মাছের উৎপাদন বৃদ্ধিতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ২২টি আড়বাধ ধ্বংস করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। মঙ্গলবার এ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন শালিখা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট গোলাম মোঃ বাতেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, শালিখা উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা শারমিন আক্তার, সহকারি মৎস্য কর্মকর্তা মীর মোঃ লিয়াকত আলী, মৎস্য অফিসের ক্ষেত্র সহকারী এজাজ আহম্মেদ, ইউএনও অফিসের প্রসেস সার্বেয়ার ওলিয়ার রহমান ও আনসার বাহিনী।
ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গোলাম মোঃ বাতেন বলেন- শালিখার ফটকি নদী সহ বিভিন্ন খাল ও বিলে বাঁশের বানা, কারেন্ট জাল, চায়না দুয়ারি, কাথাজালসহ নিষিদ্ধ বিভিন্ন মাছ ধরার ফাঁদ ব্যবহার করে এক শ্রেণীর অসাধু ব্যাক্তি দেশীয় ডিম ওয়ালা মাছসহ বিভিন্ন প্রজাতির ছোট-বড় মাছ নিধন করে আসছিল। এমন খবরে শালিখা উপজেলা মৎস্য অফিসের কর্মকর্তা বৃন্দ ও আনছার বাহিনির একটি দল নিয়ে ফটকি নদীর বিভিন্ন অংশে অভিযান চালিয়ে ২২টি আড়বাধ ধ্বংস করে অবৈধ ভাবে মাছ ধরার সরঞ্জামাদি জব্দ করা হয়। এবং জব্দকৃত মাছ ধরার সরঞ্জামাদি উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে এনে ধ্বংশ করা হয়।  এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা  বলেন, কতিপয় অসাধু ব্যক্তির সামান্য লাভের আশায় দেশী প্রজাতির মাছ ধ্বংস হতে দেয়া যাবে না। তিনি এ ধরনের আড়বাধ তৈরী করতে দেখলে স্থানীয় প্রশাসনকে খবর দেয়ার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান।
Please follow and like us:

আপনার মন্তব্য লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here