নড়াইলে প্রাথমিক বিদ্যালয় সংস্কারে দুর্নীতি-অনিয়মের অভিযোগ

নড়াইল সদর উপজেলার দেবভোগ বালিকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সংস্কার কাজে দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। প্রধান শিক্ষক অনুকুল বিশ্বাস ওই বিদ্যালয় সংস্কারের দেড় লাখ টাকা লোপাট করেছে বলে স্থানীয়দের অভিযোগ।
জানা গেছে,সদরের দেবভোগ বালিকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অনুকুল বিশ্বাস স্থানীয় দেবভোগ গ্রামের বাসিন্দা। এ কারণে তিনি অন্য শিক্ষক-কর্মচারীদের মতামতের কোন মূল্যায়ন করেন না । ২০১৯-২০ অর্থ বছরে ওই বিদ্যালয়ে সংস্কার কাজে ২লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয় এবং প্রকল্পের কাজটি করেন প্রধান শিক্ষক নিজেই।
স্থানীয়রা জানান,ছাদে চিপ ঢালাই,সামান্য কিছু জায়গা পলেস্তরা ও রং করা হয়েছে। স্থানীয়দের অভিযোগ, খুব বেশি হলে ৫০হাজার টাকার মত ওই প্রকল্পে ব্যায় করা হয়েছে। বাকি দেড় লাখ টাকা লোপাট বা আত্মসাৎ করা হয়েছে। এতদঞ্চল তথা সদর উপজেলার এগারোখান এলাকায় সংস্কার কাজ হওয়া বিদ্যালয় থেকে ঘুষের টাকা উত্তোলন করে প্রধান শিক্ষক অনুকুল বিশ্বাস শিক্ষা কর্মকর্তার নিকট পৌঁছে দেয়ার সমন্বয়কের কাজ করছেন বলে গুঞ্জণ আছে।
ঘুষের টাকা উত্তোলনে সমন্বয়কের দায়িত্ব পালনের কথা অস্বীকার করে প্রধান শিক্ষক অনুকুল বিশ্বাস বলেন,‘বর্ষার সময় কাজ করাতে গিয়ে যথাযথভাবে করতে পারিনি। তাই কাজে কিছুটা অনিয়ম হতে পারে। তাছাড়া সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ যেভাবে বলেছেন সেভাবেই কাজ করা হয়েছে।’
সদর উপজেলা শিক্ষা অফিসার আতিকুর রহমানের নিকট এ বিষয় জানতে চাইলে তিনি ঘুষ গ্রহনের কথা অস্বীকার করে বলেন,বিদ্যালয় সংস্কার কাজ করার বিষয়টি উপজেলা এলজিইিড অফিস দেখে। অনিয়ম হলে তারা বলতে পারবেন।’
সদর উপজেলা প্রকৌশলী গিয়াস উদ্দিন বলেন,‘কাজ করার আগে আমার দফতর থেকে শুধু ষ্টিমেট করে দেয়া হয়। তাছাড়া এ অফিসের আর কোন কাজ নেই। বাকি যা কিছু উপজেলা শিক্ষা অফিস করে থাকে।’
জেলা শিক্ষা অফিসার হুমায়ুন কবির বলেন,‘দেবভোগ বালিকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ অন্য যেকোন প্রতিষ্ঠানের মেরামত প্রকল্পের টাকা আতœসাৎ করা হলে তদন্ত সাপেক্ষে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

Please follow and like us:

আপনার মন্তব্য লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here