সারা জেলার মানুষের বাতায়ন হোক লিগ্যাল এইড অফিস মাসিক সভায়- শেখ মফিজুর রহমান

সারা জেলার মানুষের বাতায়ন হোক লিগ্যাল এইড অফিস মাসিক সভায়- শেখ মফিজুর রহমান

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি: জেলা লিগ্যাল এইড কমিটির চেয়ারম্যান এবং জেলা ও দায়রা জজ শেখ মফিজুর রহমান বলেছেন, সারা জেলার মানুষের বাতায়ন হোক লিগ্যাল এইড অফিস। রাষ্ট্রের সাথে সাধারণ মানুষের সেঁতু নির্মাণ করা দরকার, আমরা চাই-এ অফিসের মাধ্যমেই সেই সেতুটি নির্মিত হোক।
তিনি বৃহস্পতিবার বিকালে জেলা জজ আদালতের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত লিগ্যাল এইড কমিটির মাসিক সভায় সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন, চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোস্তফা পাভেল রায়হান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মীর্জা সালাহ উদ্দীন, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আছাদুজ্জামান বাবু, আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এড. তোজাম্মেল হোসেন তোজাম, পিপি এড. আব্দুল লতিফ, জিপি শম্ভু কুমার সিংহ, জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোবারক মেহেদী মুনিম ও লাবসা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল আলিম।
লিগ্যাল এইড কার্যক্রমকে আরও গতিশীল করতে পরামর্শ মূলক বক্তব্য রাখেন, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, জেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা, সদর উপজেলা শিক্ষা অফিসার, জেলা তথ্য অফিসার, জেল সুপারসহ লাবসা ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যবৃন্দ এবং বিভিন্ন এনজিও’র প্রতিনিধিগন।
এসময় সভায় উপস্থিত ছিলেন, জেলা জজশীপ ও ম্যাজিস্ট্রেসির বিচারকবৃন্দ, জেলা লিগ্যাল এইড কমিটির সদস্যবৃন্দ এবং লাবসা ইউনিয়নের জনপ্রতিনিধিবৃন্দ।
জেলা ও দায়রা জজ শেখ মফিজুর রহমান তাঁর স্বাগত বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশে ৩৬ লক্ষ মামলার জট, এই জট থেকে বিচার বিভাগকে মুক্ত করতে হলে আপোষের মাধ্যমে বিরোধ নিষ্পত্তি করতে হবে, এজন্য লিগ্যাল এইড’র মাধ্যমে আমরা একটি সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্ঠনী গড়ে তুলতে চেষ্টা করছি। আমরা চাচ্ছি- জেলা লিগ্যাল এইড অফিস যেন সারা জেলার মানুষের কাছে একটি বাতায়ন হতে পারে, এখান থেকে যেন মানুষ অক্সিজেন নিতে পারে, মানুষ যেন ভাবে, এখানে গেলে আমি আইনের আশ্রয় পাবো, তথ্য পাবো, বিরোধ নিষ্পত্তি করতে পারবো।
তিনি আরও বলেন, আমরা শুধুমাত্র মামলা নয়, আমরা আপোষের মাধ্যমে যাতে এগিয়ে যেতে পারি সেক্ষেত্রেও কাজ করছে জেলা লিগ্যাল এইড অফিস। সভায় জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান আইন ২০০০ এর উপর সাধারণ আলোচনা করেন, জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ইয়াসমিন নাহার। এছাড়া সভায় বে-সরকারি সংস্থা ‘সহায়’ তাদের লিগ্যাল এইড কার্যক্রমের উপর বিস্তারিত তথ্য-উপাত্ত উপস্থাপন করেন।
সভায় পত্রদূতের পক্ষ থেকে ঘোষণা দেওয়া হয়, লিগ্যাল এইড অফিসে আবেদনকারি কোন অসহায়-দরিদ্র ব্যক্তি তার মামলা পরিচালনার জন্য পলাতক আসামির জন্য প্রয়োজনীয় পত্রিকা বিজ্ঞপ্তি বিনা খরচে ছাপাতে সহযোগিতা করবে। সভায় আমন্ত্রিত অতিথি হিসাবে সদরের লাবসা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল আলিম তার ব্যক্তিগত তহবিল থেকে লিগ্যাল এইড অফিসে আসা দরিদ্র-অসহায় মানুষের দুপুরে একবেলা খাওয়া এবং যাতায়াত খরচ বাবদ ২৫ হাজার টাকা অনুদান দেওয়ার ঘোষনা দেন। এছাড়া সভায় বে-সরকারি সংস্থা (এনজিও) ‘সহায়’ একইভাবে ৩০ হাজার টাকা অনুদান প্রদান করেন এবং আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও সাধরণ সম্পাদক সভায় ঘোষনা দেন যে, বিভিন্ন সময়ে সভা-সেমিনারে তারা যে সম্মানী পেয়ে থাকেন সেই অথের্র পুরোটাই অনুদান হিসাবে প্রদান করবেন। সমগ্র অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন, জেলা লিগ্যাল এইড অফিসার ও সিনিয়র সহকারী জজ সালমা আক্তার।

Please follow and like us: