সাতক্ষীরায় যৌথ বাহিনীর অভিযানে দেশি-বিদেশি বিভিন্ন ব্রান্ডের নকল প্রসাধনী সামগ্রী জব্দ, আটক-১

সাতক্ষীরার সুলতানপুর বড়বাজারে জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থার (এনএসআই) তথ্যের ভিত্তিতে যৌথ বাহিনীর অভিযানে দেশি-বিদেশি বিভিন্ন ব্রান্ডের বিপুল পরিমাণ নকল প্রসাধনী সামগ্রীসহ এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে সুলতানপুর বড় বাজারের আলমগীর স্টোর্সের গুদামে এ অভিযান চালানো হয়। এ সময় প্রায় ৮ লক্ষাধিক টাকার ৬২ রকমের প্রসাধনী সামগ্রী জব্দ করা হয়। আটক ওই ব্যক্তিকে পরে ভ্রাম্যমান আদালতে মাধ্যমে ৬ মাসের কারাদ্বন্ড প্রদান করা হয়।
সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তির নাম হাজী আলমগীর হোসেন (৪৫)। তিনি শহরের পলাশপোল এলাকার মৃত নুর ইসলামের ছেলে।


সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট নূরুল আমিন জানান, জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থার দেয়া গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তার নেতৃত্বে বুধবার দুপুর ১২টা থেকে আড়াইটা পর্যন্ত শহরের সুলতানপুর বড়বাজারে এ অভিযান চালানো হয়। এ সময় প্রসাধনী ব্যবসায়ি আলমগীর হোসেনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আলমগীর স্টোর্সের গুদাম থেকে বিএসটিআই অনুমোদন বিহীন জনসন বেবী পাউডার, ক্রিম, লেকমি ক্রিম, ফগস পারফিউম, ক্লিন এন্ড ক্লিন ক্রিমসহ ৬২ রকমের চার হাজার ৫৬টি নকল প্রসাধনী সামগ্রী জব্দ করা হয়। ওই সব পণ্যের গায়ে কোন বিএসটিআইর সিল ছিল না। নামী দামী কোম্পানীর স্টিকার লাগিয়ে খুচরা ও পাইকারী মূল্যে তা বিক্রি করতেন ওই ব্যবসায়ি। জব্দকৃত পণ্যের মূল্য প্রায় ৮ লক্ষাধিক টাকা বলে তিনি জানান। জব্দকৃত পণ্য নষ্ট করা হবে বলে তিনি আরো জানান। ব্যবসায়ি আলমগীর হোসেন এয় জানান, তিনি ঢাকার চকবাজার থেকে ওই সব নিম্নমানের প্রসাধনী ও নামী কোম্পানীর স্টিকার কিনে এনে তা খুচরা ও পাইকারি বিক্রি করতেন। নিজের দোষ স্বীকার করায় ব্যবসায়ী আলমগীর হোসেনকে এ সময় ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদ্বন্ড প্রদান করা হয়। অভিযানে এ সময় আরো নেতৃত্ব দেন, জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থা সাতক্ষীরার উপ-পরিচালক জাকির হোসেন, র‌্যাব-৬ এর সাতক্ষীরা ক্যাম্পের অধিনায়ক সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার বজলুর রশীদ। এ সময় তাদের সাথে ছিলেন, সুলতানপুর বড়বাজার কসমেটিকস ব্যবসায়ি সমিতির সভাপতি হাফিজুর রহমান প্রমুখ।

Please follow and like us: