গৌরীপুর উপজেলা জাদুঘর প্রতিষ্ঠা ও প্রাচীন নিদর্শন সংরক্ষণের দাবি

গৌরীপুর উপজেলা জাদুঘর প্রতিষ্ঠা ও প্রাচীন নিদর্শন সংরক্ষণের দাবি

-গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি :

ময়মনসিংহের গৌরীপুরের প্রাচীন নিদর্শনগুলো প্রত্নতাত্বিক অধিদপ্তরের তালিকাভুক্তিকরণ ও উপজেলা জাদুঘর প্রতিষ্ঠার দাবিতে মানববন্ধন পালিত হয়েছে। বিশ্ব পর্যটন দিবস উপলক্ষে ২৭ সেপ্টেম্বর সোমবার দুপুরে পৌর শহরের গার্লস স্কুল সড়কে ক্রিয়েটিভ অ্যাসেসিয়েশন ও দি ইলেক্টোরাল কমিটি ফর পেন অ্যাওয়ার্ডস অ্যাফেয়ার্সের যৌথ উদ্যোগে এই কর্মসূচি পালিত হয়। কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন সাপ্তাহিক রাজগৌরীপুরের উপদেষ্টা সম্পাদক ছড়াকার আজম জহিরুল ইসলাম, ক্রিয়েটিভ অ্যাসেসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক রায়হান উদ্দিন সরকার, পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক পলাশ মাজহার, গৌরীপুর রিপোর্টার্স ক্লাবের সাবেক সভাপতি মহসীন মাহমুদ শাহ, সহ-সভাপতি লুৎফর রহমান খোকন, সাংবাদিক দিলীপ কুমার দাস, সুপক রঞ্জন উকিল, ইঞ্জিনিয়ার দিলীপ কুমার দাস, মিলন খান, গৌরাঙ্গ দেবনাথ প্রমুখ।

কর্মসূচিতে বক্তরা বলেন, ময়মনসিংহের উত্তরের জনপদ গৌরীপুর রাজা-জমিদারদের স্মৃতি বিজড়িত। এখানে রয়েছে মুঘল-সুলতানি আমলের বহু প্রাচীন নিদর্শন ও ইতিহাসখ্যাত ব্যাক্তিদের সমাধি, বীরাঙ্গনা সখিনার সমাধি, বিলুপ্তপ্রায় ছিমু রানীর দীঘি , পুরাতন মজিদ, মন্দির, রাজবাড়ী, সর্দারবাড়ী, কেল্লা বোকাইনগর ও কেল্লা তাজপুরের মাটির প্রাচীর, টাকশাল, প্রাচীন মাজার, নিজামউদ্দিন আউলিয়া (রা:) এর মাজার, ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির পুকুর, নান্দনিক আর.কে হাইস্কুল, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চারনেতার দৃষ্টিনন্দন পিতলের ম্যুরালসহ বঙ্গবন্ধু চত্বর, দেশের সর্ববৃহৎ উঁচু বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যসহ অর্ধশতাধিক স্থাপনা ও ঐতিহাসিক নিদর্শন।  এগুলোকে প্রত্নতাত্বিক অধিদপ্তরের তালিকাভুক্তি করার পাশাপাশি এখানে উপজেলা জাদুঘর প্রতিষ্ঠা করা হোক।

Leave a Reply