বগুড়ায় অস্ত্র ও জিহাদী বইসহ আনসার আল্ ইসলামের ২ জঙ্গী সদস্য গ্রেফতার

বগুড়ায় জেলা গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) অভিযানে শুক্রবার (২৭ নভেম্বর) রাতে নিষিদ্ধ জঙ্গী সংগঠন আনসার আল্ ইসলাম এর দাওয়াহ্ বিভাগের ২ জন সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এসময় তাদের থেকে উদ্ধার করা হয়েছে অস্ত্র, বিস্ফোরক দ্রব্যাদি, জিহাদী বই এবং জঙ্গি প্রচারণার লিফলেট।
গ্রেফতারকৃতরা হলেন, জঙ্গি সংগঠনের দাওয়াহ্ বিভাগের সদস্য যথাক্রমে কুমিল্লা জেলার বি-পাড়া থানার উত্তরপাড়া জোরপুল এলাকার আ: হাকিম সরকার ওরফে জজ মিয়ার ছেলে ইকবাল হোসেন সরকার (৪০) এবং একই জেলার দেবিদ্বার থানার ভৈষরকুট এলাকার শহিদুর রহমানের ছেলে জায়েদুর রহমান ওরফে আব্দুল্লাহ (৩৮)।
শুক্রবার দুপুরে জেলা গোয়েন্দা শাখার কার্যালয় হতে জেলা পুলিশ সুপার স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির বরাতে জেলা পুলিশের মিডিয়া মুখপাত্র এবং সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফয়সাল মাহমুদ জানান, রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি আব্দুল বাতেনের দিক-নির্দেশনায় এবং বগুড়া পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভূঞা বিপিএম (বার) এর তত্বাবধানে গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার রাত ১২ টার পর সদরের বাঘোপাড়া উত্তরপাড়া জামে মসজিদের দক্ষিণ দিকের একটি স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। কেন তারা মিলিত হয়েছিল এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিদ্বয় আনসার আল ইসলামের দাওয়াতী কার্যক্রম এবং অর্থ সংগ্রহের কাজ করে থাকে। উক্ত নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠনের হয়ে তারা প্রায় ৫ বছর যাবত এই দাওয়াহ্ বিভাগের কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে যেখানে সার্বক্ষণিক তারা এনক্রিপটেড বার্তার মাধ্যমে তাদের সংগঠনের কেন্দ্রীয় নেতাদের সাথে যোগাযোগ করে থাকে। এখন পর্যন্ত প্রায় ১৪টি জেলা তারা সফর করেছে মূলত সেই সফরেরই একটি অংশ হিসেবে বগুড়ায় রাত্রি যাপন এবং সাংগঠনিক কারণেই তারা সেখানে অবস্থান নিয়েছিল। ফয়সাল মাহমুদ আরো জানান, অভিযানে গ্রেফতারকৃতদের কাছ থেকে ১টি ওয়ান শুটারগান, ২ রাউন্ড গুলি, বোমা তৈরির বিস্ফোরক উপাদান ৪৭৫ গ্রাম, ১টি চাপাতি, ২৫টি জঙ্গি কার্যক্রম সম্পর্কিত বই এবং ৫০টি জঙ্গি প্রচারণার লিফলেট উদ্ধার করা হয়েছে। গণমাধ্যমকর্মীদের ব্রিফকালীন এসময় উপস্থিত ছিলেন বগুড়া সদর থানার অফিসার ইনচার্জ হুমায়ুন কবির, ডিবির ইন্সপেক্টর এমরান মাহমুদ তুহিন, গোয়েন্দা শাখার এস.আই জুলহাজ উদ্দিন, আব্দুল ওয়াদুদ প্রমুখ।
অভিযানের নেতৃত্বে থাকা জেলা গোয়েন্দা শাখার ইনচার্জ ইন্সপেক্টর আব্দুর রাজ্জাক জানান, গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে বগুড়া সদর থানায় পৃথক পৃথক ৩টি মামলা দায়েরপূর্বক শুক্রবার দুপুরের পর তাদের আদালতে প্রেরণ করে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়েছে। সেই সাথে তিনি আরো জানান, বগুড়াতে কোনভাবেই এই জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদ মাথাচাঁড়া দেওয়ার সুযোগ নেই জেলা পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে গোয়েন্দা পুলিশসহ পুলিশ পরিবারের সদস্যরা সর্বদা জিরো টলারেন্সভাবে সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা বিধানে সজাগ রয়েছে।

Please follow and like us: