বগুড়ায় ১৫টি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত আসামী প্রতারক তুহিন গ্রেফতার

বগুড়ায় ১৫টি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত আসামী প্রতারক তুহিন গ্রেফতার

-সঞ্জু রায়, বগুড়া জেলা প্রতিনিধি: একজন প্রতারকের খোঁজে অসংখ্য ভুক্তভাগী মানুষ দিনের পর দিন ঘুরেছে থানা ও কোর্টের বারান্দায়। একাধিক মামলায় সাজাপ্রাপ্ত হলেও প্রতারণার সর্বোচ্চ কৌশল অবলম্বন করে বছরের পর বছর ঘুরে বেড়িয়েছে শিল্পপতির বেশেই। আশ্চর্যজনক হলেও সত্যি গত কয়েক মাসে এই ব্যক্তি শুধু মোবাইল নম্বর পরিবর্তন করেছে প্রায় ১৬ বার। অবশেষে প্রায় ৬/৭ বছরের দীর্ঘ অপেক্ষার পর শনিবার রাতে নওগাঁ জেলার পতœীতলা থেকে বগুড়া সদর থানা পুলিশের জালে গ্রেফতার হয়েছে সেই প্রতারক।
মোট ২৩টি মামলার আসামী যার মাঝে সাজা হয়েছে ১৫টি তে গ্রেফতারকৃত সেই চিহ্নিত প্রতারক হলেন শহরের কানছগাড়ি এলাকার মৃত আক্তারুজ্জামানের ছেলে রুহুজ্জামান তুহিন (৪৬)। বগুড়া সদর থানা সূত্রে জানা যায়, শহরের বনানী-সাবগ্রাম বাইপাসে ইট ভাটায় বিনিয়োগের কথা বলে এই তুহিন বিভিন্ন ব্যক্তি ও ব্যাংক থেকে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেন। পরে পাওনাদারদের টাকা পরিশোধ করতে না পারলে একে একে তার বিরুদ্ধে ২৩ টি চেক প্রতারণা মামলা দায়ের হয়।
এর মধ্যে ১৫টি মামলায় তার ২ থেকে ৩ বছর পর্যন্ত বিভিন্ন মেয়াদে সাজা প্রদান করেছে আদালত।
সাজা ঘোষণা হওয়া মামলাগুলোতে তিনি বিভিন্ন ব্যক্তির থেকে প্রায় ১০ কোটি টাকা প্রতারণার মাধ্যমে হাতিয়ে নেন। তবে তার বিরুদ্ধে হওয়া মামলার সাজা হওয়ার পর থেকেই তিনি পলাতক ছিলেন। অবশেষে দীর্ঘ বছর পর সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফয়সাল মাহমুদ এর নির্দেশনায় বগুড়া সদর থানার ওসি সেলিম রেজার তত্বাবধানে সদরের এস.আই জাকির আল আহসান এর নেতৃত্বে তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় দীর্ঘ অভিযান শেষে শনিবার রাতে নওগাঁ জেলার পতœীতলা থানায় একজন প্রকৌশলীর বাসা বসবাসের জন্যে ভাড়া নেয়া এই প্রতারক তুহিন কে তার নিজ বাসা থেকেই গ্রেফতার করা হয়।
বগুড়া সদর থানার ওসি সেলিম রেজা জানান, তুহিনের গ্রেফতারের খবরে ভুক্তভোগীরা ন্যায় বিচার প্রাপ্তিতে আশাবাদী হয়েছেন এবং তারা পুলিশকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। রবিবার দুপুরের পর তাকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Leave a Reply