গুরুদাসপুরে সরকারি কর্মচারীকে চারদিন থানায় আটক রাখায় কর্মচারীদের বিক্ষোভ

গুরুদাসপুরে সরকারি কর্মচারীকে চারদিন থানায় আটক রাখায় কর্মচারীদের বিক্ষোভ

এম এম আলী আক্কাছ, গুরুদাসপুর (নাটোর) সংবাদদাতা: একটি হত্যাকান্ডকে ঘিরে নাটোরের গুরুদাসপুরে সরকারি কর্মচারী খলিলুর রহমান খোকনকে চারদিন ধরে থানায় আটক রেখে নির্যাতন করার অভিযোগে বিক্ষোভ মিছিল, প্রতিবাদ সমাবেশ ও মানববন্ধন করেছেন উপজেলা গণকল্যাণ কর্মচারী পরিষদ। রবিবার সকাল ১১টায় সরকারি অফিস আদালত বন্ধ রেখে তারা ওই কর্মসূচি পালন করেন।
এসময় মানববন্ধনে গুরুদাসপুর থানার ওসি মোজাহারুল ইসলাম উপস্থিত হন। তিনি বলেন, গত বৃহস্পতিবার ভোরে উপজেলার পারগুরুদাসপুর গ্রামে মুক্তিযোদ্ধা হাতেম আলীর স্ত্রী মনোয়ারা বেগম নিজগৃহে দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে ঘটনাস্থলেই নিহত হন। চাচীকে হত্যায় সংশ্লিষ্টতা আছে কিনা তার রহস্য উদঘাটনে খলিলুর রহমানসহ তার পরিবারের সদস্যদের থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

ওই মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সভাপতি আমজাদ হোসেন, আনোয়ার হোসেন, গোলাম রসুল, হাসিবুর রহমান, সবুজ আলী, রওশন আলী প্রমূখ। দুপুরে খলিলুর রহমানের নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে উপজেলা চত্বরে বিক্ষোভ করেন তারা। বক্তারা বলেন- মানবাধিকার লঙ্ঘন করে সরকারি কর্মচারী খলিলুর রহমানকে চারদিন থানায় আটক রেখে নির্যাতন করা হয়েছে। এমনকি রশি দিয়ে হাত পা বেধেও নির্যাতন করা হয়েছে। তাকে অবিলম্বে মুক্তি না দিলে কর্মবিরতিসহ পরবর্তীতে আরো কঠিন কর্মসূচির ঘোষণা দেবেন তারা।
নির্যাতনের অভিযোগ অস্বীকার করে নাটোরের পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা বলেন- হত্যাকান্ডে জিজ্ঞাসাবাদে খলিলুর রহমানের বক্তব্যে অসংলগ্নতা পাওয়া গেছে। তার ফিঙ্গারপ্রিন্ট মিলে গেলে তাকেসহ যারা কর্মবিরতি করে আন্দোলন করছে তাদের বিরুদ্ধেও আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।
গুরুদাসপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. তমাল হোসেন বলেন- সরকারি কর্মচারীরা তাদের কর্মসূচি স্থগিত করে কর্মে ফিরেছে। তারা পুলিশের কাছে ন্যায্য বিচার দাবি করেছেন।

Please follow and like us: