হাতীবান্ধায় লকডাউন উপেক্ষা করে রাতে জমজমাট বাজার!

হাতীবান্ধায় লকডাউন উপেক্ষা করে রাতে জমজমাট বাজার!

-পরিমল চন্দ্র বসুনিয়া,লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলায় করোনার সংক্রমণরোধে সরকার ঘোষিত কঠোর লকডাউন উপেক্ষা করে রাতে চলছে জমজমাট বাজার। হাটে ক্রেতা-বিক্রেতাদের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মানার বালাই ছিল না।

তবে দিনের বেলায় কঠোর লকডাউন পরিলক্ষিত হলেও রাতে ঢিলেঢালা অবস্থায় চলছে ওই উপজেলার  বিভিন্ন হাট-বাজার। অনেকেই মানছে না সরকারি বিধিনিষেধ। এমনকি মাস্ক ছাড়াই ঘুরে বেড়াতে দেখা গেছে অনেক মানুষকে।

শুক্রবার (৩০ জুলাই) রাতে ওই উপজেলার গোতামারী ইউনিয়নের দইখাওয়া বাজার হাটে এমন চিত্র দেখা যায়। সপ্তাহে শুক্রবার ও মঙ্গলবার হাট বসে। শুক্রবার বসা দইখাওয়া বাজারের হাটে বিপুল মানুষের উপস্থিতি ছিল। তবে অধিকাংশ মানুষের মুখে মাস্ক ছিল না। সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত বাজার খোলার নির্ধারিত সময় থাকলে তা উপেক্ষা করে রাতে অবাধে জমজমাট কেনাবেচা চলে এই হাটে।

ওই উপজেলার মেডিকেল মোড়, কাশিবাজার, বড়খাতা বাজার,সানিয়াজন বাজার, দইখাওয়া বাজার এলাকা ঘুরে দেখে গেছে,  মোড়ে মোড়ে আড্ডা জমিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। প্রতিটি চায়ের দোকানে রয়েছে ছোটখাটো ভিড়। টহল পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে রাতে  চলছে এসব চায়ের দোকান। এছাড়াও অনেক দোকানদার শাটার অর্ধেক নামিয়ে রাখছেন, গাড়ির আওয়াজ পেলেই পুরোটা নামিয়ে ফেলছেন তারা।

দইখাওয়া বাজারে রাতে দোকান খুলে রাখা মো.রাশেদ মিয়া বলেন, সারাদিন দোকান বন্ধ থাকায়, রাতে বেচাকেনার জন্য খুলেছি। সবাই দোকান খুলেছে তাই আমিও খুলেছি।

বাজার করতে আসা মো.আমির হোসেন বলেন, দিনে কাজ করি, রাতে টাকা পেয়ে বাজার করতে আসলাম। রাতে সব দোকান খোলা তাই বাজার করতে সুবিধা হয়।

প্রসঙ্গত, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে পবিত্র ঈদুল আজহার ছুটির পর গত (২৩ জুলাই) শুক্রবার থেকে আগামী ৫ আগস্ট পর্যন্ত কঠোর লকডাউন ঘোষণা করেন সরকার।

Leave a Reply