শুভ হত্যার বিচার দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক মেধাবী শিক্ষার্থী জাকারিয়া বিন হক শুভ’র(২৮) হত্যার বিচারের দাবী মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী ও স্বজনরা।
রোববার(২৭সেপ্টেম্বর) বেলা ১২টা টাকা থেকে লালমনিরহাট-বুড়িমারী মহাসড়কের কালীগঞ্জ উপজেলার তুষভান্ডার বাজারে ঘন্টা ব্যাপী মানববন্ধন করে। এ আগে বৃহস্পতিবার(২৪সেপ্টেম্বর) রাত নয়টার দিকে রাজধানীর মোহাম্মদপুরের তাজমহল রোডের বাসা থেকে শুভর মরদেহ উদ্ধার করে মোহাম্মদপুর থানা পুলিশ।
নিহত জাকারিয়া বিন হক শুভ লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার উত্তর ঘনেশ্যাম(এমসি মোড়) এলাকার আব্দুল হকের ছেলে। ওয়ালটনের মোবাইল সেক্টরের টেরিটরি সেলস ম্যানেজারের দায়িত্বে ছিলেন তিনি। চাকুরীর সুবাধে রাজধানীর মোহাম্মদপুরের তাজমহল রোডে শ্বশুরালয়ের পাশে ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন তিনি।
মানববন্ধনে অংশ নেয়ারা জানান, বৃহস্পতিবার(২৫ সেপ্টেম্বর) রাতে স্থানীয়দের খবরে বাসা থেকে জাকারিয়া বিন হক শুভ’র মরদেহ উদ্ধার করে মোহাম্মদপুর থানা পুলিশ।
এঘটনায় নিহত শুভ’র বড়বোন হাসিনা নাজনিন বিনতে হক বাদি হয়ে শুক্রবার(২৬ সেপ্টেম্বর) রাতে রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানায় একটি হত্যায় মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় শুভর স্ত্রী শেহনীলা নাজ ও শাশুড়ি আছমা বেগমসহ অজ্ঞাতদের আসামি করা হয়েছে। শুভ হত্যার বিচার দাবীতে রোববার(২৭ সেপ্টেম্বর) দুপুরে দোকান পাট বন্ধ রেখে লালমনিরহাট বুড়িমারী মহাসড়কের মানববন্ধন করেন এলাকাবাসী ও স্বজনরা। সুষ্ঠ তদন্তপুর্ব অপরাধীদের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা নিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করেন বক্তরা। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন কালীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মাহবুবুজ্জামান আহমেদ, তুষভান্ডার ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান নুর ইসলাম,নিহত শুভ’র বড়বোন হাসিনা নাজনিন বিনতে হক, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রেফাজ রাঙ্গা, কালীগঞ্জ প্রেস ক্লাব সভাপতি আমিরুল ইসলাম হেলাল, উপজেলা বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ বাবু প্রমুখ।
নিহতের বন্ধু-বান্ধব, আত্নীয় স্বজন, এলাকাবাসী ও তুষভান্ডার বাজারের ব্যবসায়ীরা মানববন্ধনে অংশ নেয়। মানববন্ধন শেষে নিহত শুভ’র আত্নার শান্তি কামনা করে মুনাজাত করা হয়। এরপর বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে তুষভান্ডার বাজার প্রদক্ষিন করে প্রেস ক্লাব চত্ত্বরে গিয়ে শেষ হয়।
Please follow and like us: