জানবে না কেউ একদিন ———- দেবদাস কর্মকার

জানবে না কেউ একদিন
———————————————————————-
দেবদাস কর্মকার
সূর্যবলয় ঘিরে ছোট বড় রাত আর দিন এই পৃথিবীর
অসংখ্য সকাল দুপুর অসংখ্য গোধূলি মোদির সন্ধ্যার রং,
অসংখ্য স্বপ্ন মানুষের, হৃদয়ের ঘুমের বিহ্বলতা আবেগ
কতো যে নক্ষত্র রাতের গোলাপি উমের মতো গল্প, জমানো নিশীথ।

কতো যে মাঠের কাহিনী ফসলের,সোনালি নাড়ার নিচে
ছড়ানো ছিটানো ধান,গোছা গোছা শিকড়ের শুকনো মিছিল,
আবার মাটির গন্ধে ধানকাটা শেষে জেগে ওঠে প্রাণ
পৌষের ধোয়াটে কুয়াশা আবার ফিরে আসে ঘাসের উপর।

ঝিমিয়ে পৃথিবী হলুদ পাতার নিচে, আয়ুহীন নিস্তব্ধতা নিয়ে,
শীতল নদীর জলে ধোয়া মেখে সকালের নিস্তেজ রোদ
দাড়িয়ে পলির পাশে ইলকের সেই রূপশী মেয়েটি কি!
সে যেন আর এক নদী এই পৃথিবীর, শুধু সবুজ লেবুর গন্ধ ভাসে তার বুকে,
কতো দূর দেশ,কে যেন সাজিয়ে রাখে মাটির উপর।

কেমন অবাক ভেবে সূর্য লোকের নীচে অসংখ্য জীবন অনেক মৃত্যুরে সাথে করে আছে বেঁচে,
কখনো ভাবে না কেউ একদিন কতো মৃত্যুর ঘুম,
অহেতুক মেঘের বলয় ক্লান্ত হয়ে মিশে যাবে পৃথিবীর মাঝে, তারপর মহাকাল আকাঙ্ক্ষার আলোড়নে জানাবে বিদায় —

ফুড়াবে মাঠের গল্প কতো যে সকাল দুপুর
অসংখ্য নক্ষত্র রাত্রি ফুড়াবে তোমাকে পাবোনা জেনে
গোলাপি উমের ভাঁজে হৃদয়ের ক্ষার,এলোমেলো ভিড়
জানবে না কেউ একদিন অশোকের ডাল থেকে হলুদ পাতাটি, হঠাত্ মুখগুজে ঝরে যাবে ধীরে।

২২/১২/২০২০ ঢাকা। ৭ পৌষ ১৪২৭

Please follow and like us: