চারুকলায় সীমিত পরিসরে বাংলা বর্ষবরণ উৎসবের প্রস্তুতি।

বৈশাখ ১৪২৮। বাঙালির সংস্কৃতিকে ধারণ করে ‘বাংলা নববর্ষ’ পহেলা বৈশাখ।

“কাল ভয়ঙ্করের বেশে এবার ঐ আসে সুন্দর” এই শ্লোগান নিয়ে হতে চলেছে বাংলা বর্ষবরণ এবং মঙ্গল শোভাযাত্রা। প্রতিবছর চারুকলা অনুষদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এই বর্ষবরণ উৎসব নিয়ে মানুষের মধ্যে থাকে নানান আগ্রহ। হাজারো মানুষের ঢল নামে ঢাকার রাজপথে। রঙে-ঢঙে সবাই সেজে উৎসব আনন্দে মেতে ওঠে। কিন্তু এবারের বর্ষবরণ যেন অনেকটাই ব্যতিক্রম। করোনা মহামারির কারণে এবার সীমিত পরিসরে উদযাপিত হবে বাংলা বর্ষবরণ উৎসব। তবে এবার থাকবেনা হাজার হাজার মানুষের আনাগোনা, থাকবেনা হৈ-হুল্লোর। খুবই স্বল্প পরিসরে হবে মঙ্গল শোভাযাত্রা। দেশের নানা শ্রেণী, পেশা, ধর্ম উপেক্ষা করে অসাম্প্রদায়িক চেতনায় বিশ্বাসী হয়ে সারা বিশ্বের মঙ্গল জ্ঞাতার্থে এই মঙ্গল শোভাযাত্রা। চারুকলায় শিক্ষক-শিক্ষার্থী মিলে যথেষ্ট স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রস্তুতি গ্রহণ করছে বর্ষবরণ ও মঙ্গল শোভাযাত্রার। তুলির টানে আঁকা হচ্ছে সীমানা প্রাচীরে আলপনা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষ পুর্তি উপলক্ষ্যে এবারের আয়োজনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে মাত্র ১০০ জন নিয়ে এবং সেইসাথে ১০০ টা আইটেম নিয়ে এ বছরের মঙ্গল শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হবে। করোনা মহামারির কারণে বাংলা ঐতিহ্যের সমন্বয়ে একশজন, ১০০ টা ফেইস শিল্ড নিয়ে মঙ্গল শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণ করবেন বলে জানান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারি প্রোক্টর এবং তিনি আরো বলেন এবারের এই মঙ্গল শোভাযাত্রার মধ্যে দিয়ে জাতিকে সচেতনতার বার্তা পৌঁছে দেওয়া হবে।

Please follow and like us:

আপনার মন্তব্য লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here