ক্রীড়ারত নিষ্পাপ শিশুর গায়ে গরম ভাত ঢেলে দিলেন আপন চাচা

একটি তুচ্ছ অভিযোগ এনে শিশুটির ওপর ফুটন্ত গরম ভাত ঢেলে দেন তারই আপন বড় চাচা আব্দুর রশীদ।
ছয় বছরের শিশুটি এখন আর কাঁদতেও পারছে না। কান্নার শক্তি হারিয়ে ফেলেছে সে। কণ্ঠও বসে গেছে। এখন গলা দিয়ে শুধু হালকা আওয়াজ বের হয় ব্যথার।
তার মাথার পেছনে ঘাড়ের ওপর-নিচ ও কানসহ শরীরের বিভিন্নস্থান ঝলসে গিয়ে দগদগে ক্ষত সৃষ্টি হয়েছে।
গত সোমবার সকালে এমন ঘটনা ঘটেছে চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলায় ভাংবাড়িয়া গ্রামে।
শিশুটির নাম রাব্বি হোসেন। শিশুটি চিকিৎসাধীন আছে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে, কর্তব্যরত চিকিৎসক জানালেন যে, শিশুটির অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেওয়ার পরামর্শও দেওয়া হয়েছে। এই ঘটনার শোকে বিলাপ করছেন শিশুটির মা।
মালয়েশিয়া প্রবাসী ভাইয়ের সঙ্গে বিরোধের জের ধরে উদ্দেশ্যমূলকভাবে অবুঝ শিশুটির ওপর এমন অমানুষিক অত্যাচার করেছেন তিনি৷
শিশুর মা রোমানা খাতুন জানালেন, ‘গত সোমবার সকালে রাব্বি বাড়ির মধ্যে অন্য শিশুদের সঙ্গে খেলছিল। আমি ভাত রান্না করছিলাম। সেসময় পাশের একটি কক্ষে তার বড় চাচা ঘুমাচ্ছিলেন।’
‘খেলতে থাকা শিশুদের চিৎকারে ঘুম ভেঙে যায় রশিদের। রেগে গিয়ে চুলার ওপর থেকে ফুটন্ত ভাতের হাড়ি নিয়ে রাব্বির মাথায় ঢেলে দেন আব্দুর রশীদ।’
‘এতে রাব্বির মাথা, ঘাড় ও কানসহ শরীরের বিভিন্নস্থান ঝলসে যায়’ উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, ‘স্থানীয়ভাবে চিকিৎসার পর রাব্বির শারীরিক অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় তাকে গতকাল রাতে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।’
আলমডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর কবির বলেন, ‘খুবই মর্মান্তিক ঘটনা। একজন অফিসার পাঠিয়ে খোঁজ নিয়েছি। এখনো ওই বিষয়ে অভিযোগ করেনি শিশুটির পরিবার। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’
‘অভিযুক্ত রশিদের কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি’ উল্লেখ করে ওসি আরও বলেন, ‘তিনি পালিয়ে যেতে পারেন।’
Please follow and like us:

আপনার মন্তব্য লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here