বেসিক ট্রেড প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া ও ক্লাশ চালু করতে স্মারকলিপি

[sc name=”user_writer” ]

বিটিএসডি ফোরামের ৪১টি জেলায় গঠিত সংগঠনের আহব্বায়ক এবং সদস্য সচিবসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠান প্রধানগণ কর্তৃক একযোগে প্রত্যেক জেলা প্রশাসক এর মাধ্যমে সচিব, কারিগরি ও মাদ্রাসা বিভাগ, শিক্ষা মন্ত্রনালয়, ঢাকা বরাবর বাকাশিবো অনুমোদিত বেসিক ট্রেড প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান সমূহ স্বাস্থ্য-বিধি মেনে খুলে দেয়া ও ক্লাশ চালু করার জন্য অনুমতি প্রাপ্তি প্রসঙ্গে স্মারকলিপি প্রদান করেন।
বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়:
বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড অনুমোদিত বেসিক ট্রেড পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান সমূহের জাতীয় সংগঠন বেসিক ট্রেড স্কীল ডেভেলপমেন্ট ফোরাম। এ প্রতিষ্ঠানগুলো দেশের বিপুল পরিমান জনসংখ্যাকে বিভিন্ন ট্রেডে কারিগরি ও আইসিটি প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষ মানবসম্পদ, ফ্রিলান্সার তৈরি এবং ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে দৃঢ়ভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এই প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের যৌক্তিকদাবি অনুযায়ী বলছে যে, আমরা-
১। করোনা ভাইরাস (ঈঙঠওউ-১৯) সংক্রোমন রোধ এবং সৃষ্ট মহামারি-মহাদুর্যোগ পরিস্থিতিতে আমাদের প্রতিষ্ঠান সমূহ আপনার মাধ্যমে সরকারের নির্দেশে বিগত ১৮ মার্চ ২০২০ থেকে বন্ধ। আমরা আমাদের প্রশিক্ষণার্থীদের ক্ষতি পুষিয়ে দিতে সরকার ও বাকাশিবো নির্দেশিত ডিজিটাল কনটেন্ট ভিত্তিক অনলাইন প্রশিক্ষণ দিচ্ছি।
২। দেশের যে সকল প্রতিষ্ঠানের প্রশিক্ষকদের অনলাইনে ক্লাস নেয়ার দক্ষতা ও অভিজ্ঞতার ঘাটতি রয়ে গেছে, তাঁদের নিয়ে আমরা ইতোমধ্যে বেশ ক’টি ‘অনলাইন টিচার্স ট্রেনিং ওয়ার্কশপ’ করেছি এবং অব্যহত আছে।
৩। আমাদের বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান ধ২র এর মাধ্যমে ফেসবুক ভিত্তিক অনলাইন ক্লাস প্রদান করে আসছে।
৪। আমাদের প্রতিষ্ঠানসমূহ বন্ধ থাকায় আমাদের আয় সম্পূর্ণ বন্ধ কিন্তু প্রতিষ্ঠানের সকল ব্যয় নির্বাহ করতে হচ্ছে। ফলে আমরা প্রতিদিন অপরিমেয় অর্থিক ক্ষতির সম্মূখীন হচ্ছি।
৫। আমরা কারিগরি ও আইসিটি প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষ মানবসম্পদ তৈরী এবং ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে কাজ করি, সেটিও আজ মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত।
৬। আমরা বিগত ৬ মাস ধরে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়সহ সংশ্লিষ্ট সকল মন্ত্রণালয় ও দপ্তরে আমাদের প্রণোদনা/সহায়তার জন্য আকুল আবেদন করলেও আজ পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ ইতিবাচক সাড়া দেয়নি।
৭। এই মূহুর্তে আমরা সম্পূর্ণ সহায়-সম্বলহীন। পরিবার-পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন-যাপনে বাধ্য হচ্ছি। অনেক প্রতিষ্ঠান অর্থাভাবে বন্ধ হয়ে- উঠে যেতে শুরু করেছে। তাঁদের পাশে দাঁড়ানো সময়ের দাবী।
প্রিয় মহোদয়, আমরা যে প্রশিক্ষণার্থীদের প্রশিক্ষণ প্রদান করি, তাদের সিংহভাগই শিক্ষিত ও প্রাপ্তবয়ষ্ক। আমরা বিশ্বাস করি, আমাদের প্রতিষ্ঠান সমূহ খোলার অনুমতি পেলে, আমরা করোনা-সংক্রমন বিষয়ক নিরাপদ দূরত্ব ও স্বাস্থ্য-বিধি মেনেই ক্লাস পরিচালনা করতে সক্ষম। আমরা প্রতি-ব্যচে প্রশিক্ষণার্থীর সংখ্যা কমিয়ে, দিনের ব্যাচ-সংখ্যা বাড়ানোর কৌশল নিতে চাই।
অনতিবিলম্বে সারা দেশের বেসিক ট্রেড প্রতিষ্ঠান সমূহ স্বাস্থ্য-বিধি মেনে সীমিত পরিসরে ক্লাস পরিচালনা করার জন্য অনুমতি ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করে বাধিত করবেন।
এছাড়াও সদয় অবগতির জন্য অনুলিপি প্রেরন করেছেন ১। মাননীয় মন্ত্রী, শিক্ষা মন্ত্রণালয়, ঢাকা, বাংলাদেশ, ২। মাননীয় উপমন্ত্রী, শিক্ষা মন্ত্রণালয়, ঢাকা, বাংলাদেশ, ৩। বিভাগীয় কমিশনার (সকল), ৪। মহাপরিচালক, কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদপ্তর, ঢাকা, ৫। চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড, ঢাকা, ৬। সচিব, বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড, ঢাকা বরাবর।

[sc name=”fb_page” ]

Leave a Reply