দেয়াল

দেয়াল
– দেবদাস কর্মকার,
অরণ্য ঢেকে আছে নিবিড় শ্যামলে,এমন সকাল
বর্ষা কাল বলেই আকাশে কৃষ্ণ বর্ণ মেঘের উচ্ছ্বাস
সামনে ই মজা পুকুর,নিঃসঙ্গ কানি বক ধ্যানস্থ খাদ্যের আয়োজনে, আমিও নিঃসঙ্গ একাকী, জীবনের রোমাঞ্চিত অতীত দেখি বার বার,স্মৃতিভূক বিউগল ক্রমাগত বেজে চলে, সর্বগ্রাসী সময়ে।
কি ছিলো কি যেন নেই সে এক রহস্যময় কৌতুক
পিতা পুত্র কন্যা স্ত্রী স্বামী স্বজন সমস্ত সম্পর্ক গুলি
ফুলের পাপড়ির মতো ছুঁয়ে আছে গোপন অশ্রুর ভিতরে,যেন হৃদয়ের কোল ঘেঁষে অশ্বত্থের গোপন ছায়ায় এক একটি নক্ষত্র পাখি,একটি মাত্র বৃন্ত বিন্দু কতোটা সযত্ন লালিত জগত সংসার,এক একটি সত্য বা মিথ্যে সম্পর্কের অভিনয়, শরীর থেকে প্রবাহিত রক্ত কণিকা
সব কিছু মিথ্যে,শুধু এক টুকরো মৃত্যুর শব্দমালায় ।
কি ছিলো কি যেন নেই,গভীর রহস্য জুড়ে আছে অদৃশ্য দেয়াল,কতটুকু প্রেমিক পুরুষ কতটুকু পিতা কতোটা সংকল্পে অটল,ক্ষণস্থায়ী প্রতিবিম্ব ভেসে ওঠে ধরিত্রীর ধুলি মাখা ধুসর আয়নায়
এই প্রভাত অরণ্যের ডালে ও পাতায় পাখিদের গানে কি চঞ্চল জীবনের সুর,একটি জীবনের পরিভ্রমণে প্রতীতি আমার, কতোটা যাবো বুনো জন্তুর মতো একরোখা।
পারিনি যেতে, যে পারে সে মুখোশের আড়ালে অন্য মানুষ,সে গোলাপ দেখেনি কোন দিন,বাসেনি ভালো কোন নারীর হৃদয়, লাবণ্য ছুঁয়েছে তাকে বার বার অনিবার্য প্রস্ফুটিত ফুলের শাঁখায়,স্বপ্নের কুয়াশা দিয়ে বিষন্ন সুন্দরে ডেকেছে কোন নারী, মুগ্ধ মেঘমালা,
একটি অদৃশ্য দেয়াল লতাপাতার আড়ালে ঢেকে আছে
জন্ম মৃত্যুর অবিরাম মুখর মেলায়, কে স্পর্শ করবে তারে,না অরণ্য না আকাশ না কি মেঘের আড়ালে তুমি।
Please follow and like us:

হালনাগাদঃ