ভালো নেই রূপশীলা

ভালো নেই রূপশীলা
———————————————————————
দেবদাস কর্মকার,
দুয়ার ধরে দাঁড়িয়ে আছে সে, চোখ তার সব ছেড়ে মেঘের উপরে, কোন দূর রূপকথার দেশে জন্ম হয়েছিলো তার,যেখানে সে উঠেছিলো বেড়ে, ভাই বোন মা বাবা মিলে, নুয়ে ছিলো যেন ভালোবেসে অপূর্ব সংসার,বালিকা,কতো শব্দ পায়ের নিচে ঘষে ঘষে সবুজ মাঠের উপর, ফড়িংয়ের পিছে বিনুনী খুলে কেটেছে কতো রোদেলা সকাল, পুকুরের জলে ভেসে ভেসে কতো দিন দেখেছে সে জল মাকড়সার ছুটোছুটি খেলা,জলে ডুবে ডুবে ভরাবাদলের দিনে শুনেছে কতো দিন বৃষ্টির জলতরঙ্গের সুর।
তারপর বরবটির ভরা খেতে ধানের ছড়ার নিচে একবুক জ্যোস্নায়, অবাক বিস্ময়ে হারালো বুঝি তার তরুণী হৃদয়, সারারাত্রি ছায়া স্বপ্নের ঢেউ, হৃদয়ে বেদনা জমেছে কতো,হৃদয় ভুলেছে সব ভাষা, কোন উড়ন্ত রথে দুর্বল মেধার ভিতরে পরাণ গিলেছে কোন প্রেমিক পুরুষ, চন্দন ছুঁয়ে ছুঁয়ে ঝরে গেছে কতো ফুল ,গন্তব্য যখোন সংসার,কতো সকাল কতো দুপুর,বিকেল সন্ধ্যা রাত্রি, শিকল বিহীন বন্ধন,নারী, কে পোড়ায় তীব্র দহনে তাকে অহর্নিশ!
শুধুই নারী শুধুই অন্যের চোখে রূপ, সম্পূর্ণ মানুষ কখনো সে নয়,বিমর্ষ মনের ঠাই নেই কোথা, কি অদ্ভুত জন্ম এই পৃথিবীতে, কতো ব্যথা, বিরোধ হৃদয়ের সমস্ত তৃষ্ণা ভুলে শুধুই ক্ষমার অপেক্ষা গুলি প্রহরে প্রহরে, সে কেবল শুধুই নারী মানবী কখনো নয়।
মানব এসেছে ফিরে বার বার গর্বিত শিরে বোঝেনি তার মন,কতো শীত কতো জ্যোস্নায় পতঙ্গ মরেছে ধীরে, ভালো নেই রূপশীলা, শতবর্ষের শত তৃষ্ণা গ্লানি শত বেদনায় বেঁচে আছে পৃথিবীর গৃহকোণে আচ্ছন্ন কোন ঘুমের ভিতর, গোলাপি মেঘের উপরে দৃষ্টি মেলে, সেখানে আছে বুঝি সেই অপূর্ব নারীশ্বর!
২৮/০৯/২০ ২০ ঢাকা। ১৪ আশ্বিন ১৪২৭
Please follow and like us: