নোকিয়াকে চাঁদে প্রথম সেলুলার নেটওয়ার্ক নির্মাণের দায়িত্ব দিল নাসা

0
13
এবার চাঁদে মোবাইল কমিনিকেশন নেটওয়ার্ক তৈরীর কাজ করবে “নোকিয়া”। নোকিয়া নেটওয়ার্ক আর ফোনের জগতে রাজত্ব শুরু করেছিল মোবাইল ফোনের শুরুর দিক থেকে দীর্ঘদিন। অনেক চড়াই উৎড়াই পার করে নোকিয়া আবার ফিরে আসছে বাজারে। এই পদক্ষেপের মাধ্যমে নোকিয়া উন্মোচিত করতে যাচ্ছে প্রাযুক্তিক উৎকর্ষের নতুন দিগন্ত।
নোকিয়া বেল ল্যাবস, নোকিয়ার পৃষ্ঠপোষকতায় উদ্ভাবনী গবেষণাগার হিসেবে কাজ করছে বিশ্ববিখ্যাত বেল ল্যাবরেটরির সাথে। এই নেটওয়ার্ক সিস্টেম স্বয়ংক্রিয়ভাবে নিজেই স্থাপিত হবে চাঁদের পৃষ্ঠে। প্রথমে নোকিয়া কজ করবে ফোরজি-এলটিই নেটওয়ার্ক নিয়ে। পরবর্তীতে ফাইভ জি নেটওয়ার্ক বিস্তারের পরিকল্পনা করছে নোকিয়া।
নোকিয়া বেল ল্যাবস প্রেসিডেন্ট এবং নোকিয়ার চীফ টেকনোলোজি অফিসার মার্কাস ওয়েলডন জানালেন যে, নোকিয়া স্পেস কমিউনিকেশন থেকে শুরু করে কাজ করেছে বিগ ব্যাঙয়ের ফলে সৃষ্ট মহাকাশ তরঙ্গ নিয়ে, যার পথ ধরেই আজ নোকিয়া মহাকাশের প্রথম সেলুলার নেটওয়ার্ক স্থাপন করতে যাচ্ছে, যা মানবসভ্যতার জন্য একটি অগ্রগামী পদক্ষেপ। এর মাধ্যমেই সূচিত হতে যাচ্ছে চাঁদে মানুষের ব্যবহারের জন্য টেকসই এবং দীর্ঘস্থায়ী নেটওয়ার্ক সিস্টেম, যা কাজ করবে একদম ভূপৃষ্ঠে স্থাপিত নেটওয়ার্ক এর মতই। এই সিস্টেম ডেপ্লয়(স্থাপন) করার জন্য নোকিয়া চন্দ্রপৃষ্ঠের ভৌগোলিক বৈশিষ্ট্য এবং উত্তাল আবহাওয়া কে নিয়েও গবেষণা করেছে।
নোকিয়ার এই নেটওয়ার্ক লঞ্চ করতে সহায়িতা করবে “টিপিং পয়েন্ট সলিসিটেশনস” এবং “ইন্টিউশিভ মেশিনস” নামের দুটি প্রতিষ্ঠান।
Please follow and like us: