জাপানে কিবো রোবট প্রোগ্রামিং চ্যালেঞ্জে রুয়েট-৭১ এর অর্জন!

জাপানে কিবো রোবট প্রোগ্রামিং চ্যালেঞ্জে “রুয়েট-৭১” দলের অভাবনীয় অর্জন।
-প্রিলিমিনারী লিডারবোর্ডে তারা এখন রয়েছে ২য় অবস্থানে। একই সাথে প্রথম স্থানে রয়েছে বাংলাদেশী দল, xDawn এবং আরো বিভিন্ন অবস্থানে নাম রয়েছে বাংলাদেশের কয়েকটি স্বনামধন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের রোবোটিক্স দলের নাম।

আমরা প্রতিযোগী দলের দলনেতা ও প্রতিনিধি Sudipto Mondal এর ওয়াল থেকে উদ্ধৃত করছি,
“জাপানের JAXA(宇宙航空研究開発機構) : Japan Aerospace Exploration Agency, দ্বিতীয়বারের মত এবার আয়োজন করেছে KIBO-Robot Programming Challenge. KRPC মূলত সবার মধ্যে স্পেস রোবোটিক্স এবং স্পেসের অনেক ধরনের এক্সপেরিমেন্টাল কাজ তুলে ধরে স্পেস নিয়ে আগ্রহ তৈরি করে।
ইন্টারন্যাশনাল স্পেস স্টেশন (ISS) এর একটা জাপানিজ সাইন্স এক্সপেরিমেন্ট মডিউল হলো KIBO এবং সেই KIBO মডিউলের একটা রোবট হলো ASTROBEE. এবারের কন্টেস্ট এর মূল উদ্দেশ্য হলো, ASTROBEE রোবোটকে প্রোগ্রাম করে নির্দিষ্ট একটা গেইমফ্লো অনুসারে কিছু কাজ সম্পন্ন করতে হবে। যারা যত কম সময়ে এবং যত নিখুতভাবে টাস্ক সম্পাদন করতে পারবে তারা তত ভাল স্কোর করতে সক্ষম হবে।
ASTROBEE তৈরি করা হয়েছে Qualcomm Snapdragon 805 চিপের উপর ভিত্তি করে। রোবোটিকে প্রোগ্রাম করা হয় মূলত অ্যান্ড্রোয়েড অ্যাপ্লিকেশন দ্বারা। Android Studio দিয়ে নির্দিষ্ট টেম্পপ্লেট এর উপর কোডিং করে আউটপুট হিসাবে APK ফাইল তৈরি করা হয়। সেই APK ফাইলই HLP, MLP, LLP হয়ে ASTROBEE এর কাছে পৌঁছায়। GDS ( Ground Data System) হতে সেই সকল আউটপুট পরীক্ষা করা হয়। প্রাথমিক পর্বগুলো সিমুলেশনের মাধ্যমেই সম্পন্ন হবে। কিন্তু চূড়ান্তপর্ব সরাসরি ISS এর KIBO মডিউলেই সম্পন্ন হবে। প্রতিযোগীদের APK সরাসরি ASTROBEE এর সাথে আপলিংক করা হবে।
৩-পর্বে আয়োজিত এই প্রতিযোগিতার প্রিলিমিনারি ট্রায়েল এর বাংলাদেশ পর্ব শেষ হয়েছে। ২য় স্থান নিয়ে সফলতার সাথে পরবর্তী রাউন্ডে অংশগ্রহণের সুযোগ পেয়েছি। সফলতা বিফলতার থেকেও অনেক বেশি কিছু পেয়েছি ভিন্নধর্মী এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে।

Linux ( Ubuntu), ROS ( Robot Operating System), Android Studio, Space Quaternion, Simulation …. নিয়ে বেশ জ্ঞান অর্জন করতে পেরেছি। 24/7 অনলাইন সিমুলেশন, অফলাইন সিমুলেশন, ডিবাগিং করেই পার হয়েছে বিগত ১ মাস। আশা করি পরবর্তী রাউন্ডগুলোতেও ভাল করতে পারবো।
আমার কাছে এই প্রতিযোগীতা থেকে সবচেয়ে বড় প্রাপ্তি হলো গোটাকয়েক মানুষ, যারা একদিকে অমায়িক, অন্যদিকে অভিজ্ঞায় ঠাসা।
Mizanul Chowdhury স্যার, যার উদ্যোগেই বাংলাদেশ আজ এত বড় প্রতিযোগীয় অংশগ্রহণ এর সুযোগ পেয়েছে, তাকে নিয়ে যতই বলবো ততই কম হবে। তার ব্যস্ত জীবন থেকে সময় বের করে এই প্রতিযোগীতার মাধ্যমে তৈরি করে ফেলেছেন, STEMX 365 প্লাটফর্ম, যেই প্লাটফর্ম এর আন্ডারে অদূর ভবিষ্যতে বাংলাদেশী স্টুডেন্টরা এমন অসংখ্য আন্তর্জাতিক প্রতিযোগীয় যুক্ত হতে পারবে।
এরপরেই যার কথা না বললে সব লেখা অসমাপ্ত থেকে যায় সে হলেন, Saba Jamin আপু। প্রতিটা টিমের সাথে ডিল করা থেকে শুরু করে, মিটিং হোস্টিং, রেজাল্ট আপডেটসহ আরো যাবতীয় সব কাজ তার হাত দিয়েই হয়েছে। আমার খুবই প্রিয় একজন সাবা আপু।
Razin Bin Issa ভাইয়া বেস্ট এডুকেটর। এই প্রতিযোগীয় যার নিজের অংশগ্রহণ থাকা সত্ত্বেও এমন কিছু ব্যাপারে হেল্প করেছেন যা তার নিজের টিমের স্কোরের উপর প্রভাব ফেলতে পারে। লাভ ইউ ভাই ❤️। আপনি আইডিয়া না দিলে হয়ত মাঝ পথেই হাল ছেড়ে দিতাম। এছাড়াও পরিচিত হয়েছি এমন গুটিকয়েক মানুষের সাথে যারা ঠিক আমার মতই, কাজের মধ্যেই মজা খুজে পায়।
Team Member for KRPC:
1. Sudipto Mondal – Team Lead and Representative for KIBO-RPC
2. Muhammad Sabbir – Research ( Thanks for introducing me with the platform ❤️)
3. Shahariar Islam Shompod – Programming expert ( Java)
এইতো আজ এতটুকুই। পরবর্তী রাউন্ডগুলোর আপডেট মিজান স্যারের প্রোফাইল এবং STEMx365 থেকেই জানিয়ে দেওয়া হবে।
Mizan Sir: https://www.facebook.com/mizanul.chowdhury
STEMx365: https://www.facebook.com/stemx365/
https://stemx365.org/tournmnt/2
KIBO-RPC নিয়ে বিস্তারিত : https://jaxa.krpc.jp/

Leave a Reply