সেপ্টেম্বর ইভেন্টে এপলের নতুন চমক নতুন iPad Air এবং iWatch 6!

0
15
যারা দীর্ঘদিন ধরে অপেক্ষায় ছিলেন এপলের সেপ্টেম্বর ইভেন্টের জন্য তাদের বেশিরভাগই হতাশ হয়েছেন এপলের এবছরের আইফোন এর কোন ঘোষণা না আসায়। তবে আইফোন না আসলেও এপল কিন্তু ঠিকই চমক এনেছে প্রযুক্তির বাজারে। তারই আদ্যোপান্ত উঠে এসেছে এই লিখার মধ্যে।

এপলের সেপ্টেম্বর ইভেন্টের সবচেয়ে বর চমক ছিল আইপ্যাড এয়ার, যাকে সম্পূর্ণ নতুন ডিজাইনে তুলে ধরা হয়েছে একেবারে “আইপ্যাড প্রো ২০২০” এর মত করেই। প্রায় একই লুক, স্টেরিও স্পীকার, ন্যারো বেজেল ডিজাইন সবই আছে। ক্যামেরা থাকছে ১২ মেগাপিক্সেলের। আর প্রসেসর হিসেবে থাকছে এপলের নতুন ৫ন্যানোমিটার প্রসেসের “A14 Bionic” চিপ। এপল পেন্সিল সাপোর্ট রয়েছে আগের মতই। দামেও রয়েছে চমক, ৫৭৯ মার্কিন ডলার থেকেই শুরু হচ্ছে এই আইপ্যাড এয়ার। আবার পুরাতন আইপ্যাড কে একটু নতুন ফিচার দিয়ে তারা এনেছে আইপ্যাড ৮ নাম দিয়ে, যার ডিজাইন এবং লুক অনেকটা আইপ্যাড ১০.২ এর মত হলেও ভেতরে আছে “A12 bionic” চিপ, এবং দামও রাখা হবে ৩২৯ মার্কিন ডলার থেকে।

এর পরেই বলতে হবে এপল ওয়াচ সিরিজ সিক্স এর কথা। কোভিড-১৯ এর কথা চিন্তা করে রক্তে অক্সিজেন মাপার জন্য যুক্ত হয়েছে “পালস অক্সিমিটার সেন্সর”, একইসাথে আগের সব ফিচার কে করা হয়েছে আরো উন্নত। ইউজার ইন্টারফেস, ওয়াচ ফেস, আর একটিভিটি ট্র্যাকিং এর কাজ আরো আপোসহীন ভাবে করতে ওয়াচ ওএস ৭ এর রিলিজ করা হয়েছে। আগের চেয়ে নতুন রঙের আইওয়াচ এবার বাজারে নামছে, যা মধ্যে রয়েছে নীল, লাল, গোল্ডেন, কালো, সিলভার এবং গোল্ডেন।

তবে এবার এপল তাদের প্রোডাক্ট লাইন আপে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিয়েছিল বাজেট আইটেম গুলোতে, এর মধ্যে রয়েছে “iWATCH SE”, এর বিশেষত্ব হল, এর মোটামুটি সব ফিচারেই আপগ্রেড করা হয়েছে, তবে দাম শুরু হবে ২৭৯ মার্কিন ডলার থেকে, যেখানে এপল ওয়াচ ৬ এর দাম আছে ৩৯৯ মার্কিন ডলার থেকে। অর্থনৈতিকভাবে মানুষ এখন ক্ষতিগ্রস্ত বলেই এপলের সকল দামী পণ্যে বিক্রি কমে যাওয়া শুরু হয়। এপল এই ধ্বস ঠেকাতে কিছিদিন আগেই বাজারে আনে “আইফোন SE 2020”, যা বাজারে মোটামুটি ভালই সাড়া ফেলেছিল। এজন এপল তাদের পণ্যের একটু ফিচার কমিয়ে দাম নাগালের মধ্যে রাখার দৌড়ে নেমে পড়েছে।
হার্ডওয়ারের সাথে পাল্লা দিয়ে এপল বাজারে আঞ্ছে নতুন নতুন সফটওয়ার পরিষেবা। এবার তারা নতুনভাবে উন্মুক্ত করেছে “Apple One” এবং “Apple Fitness+”.
“Apple Fitness+” হল এক রকমের ফিটনেস ট্রেনিং এর সেবা, যা ব্যবিহার করে আপনি ডেইলি এক্সারসাইজথেকে শুরু করে ইয়োগা, জিম, ট্রেডমিল রানিং সহ আরো অনেক রকম ব্যায়ামের ট্রেনইং নিতে পারবেন এক্সপার্ট দের কাছ থেকে। এর জন্য আপনার এপল ওয়াচ থাকা বাধ্যতামূলক।

“Apple One” এর মধ্যেই থাকছে এপলের কয়েকটি সেবার বান্ডেল, যেমন আইক্লাউড স্টোরেজ, এপল টিভি, এপল ফিটনেস প্লাস সহ আরো অনেক কিছুই। চাইলে এই সেবাটি একজন কিনে তার পরিবারের ছয়জন সদস্যের সাথে শেয়ার করতেও পারবেন।
এত কিছু রিলিজ দেবার পরেও কেন যেন সেপ্টেম্বরের এপল ইভেন্ট অসম্পুর্ণ রয়ে যায় একটি নতুন আইফোন ছাড়া। তবে এপল বলেছে এবার দেরীতে হলেও একটি চমক নিয়ে অপেক্ষা করছে এপলের আইফোন। তাই নতুন আইফোন যারা কিনতে চাইছেন, অপেক্ষা করুন কিছুদিন।

Please follow and like us: